ত্রিপুরা

ত্রিপুরা রাজ্যে ফের একবার আক্রান্ত গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভ।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক,ত্রিপুরা : ত্রিপুরা রাজ্যে ফের একবার আক্রান্ত হয়েছে গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভ। ইংরেজি নববর্ষের প্রথম দিনই নেশামাফিয়াদের হাতে আক্রান্ত সাংবাদিক আশীষ তালুকদার। তাকে বাঁচাতে গিয়ে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন গ্রামবাসীও। ত্রিপুরা রাজ্যের পুলিশ কুম্ভকর্ণের নিদ্রায় নিদ্রিত। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ইংরেজি নববর্ষের দিন সাংবাদিক আশীষ তালুকদার বাড়ির পাশে একটি সামাজিক অনুষ্ঠান শেষে বাড়ি ফেরার পথে নেশামাফিয়া মোহিত দাস,মন্তোস দাস,বীথিকা দাস,সুমি দাস সহ তার পরিবারের অন্যান্য লোকজনেরা একসাথে একত্রিত হয়ে সাংবাদিক আশীষ তালুকদারের উপর আক্রমণ চালায়। সাংবাদিক আশীষ তালুকদারের একটাই অপরাধ নেশামাফিয়া মোহিত দাসের বিরুদ্ধে নেশাকারবারির দুইবার খবর সম্প্রচারন করেছিল।সেই সূত্রেই নেশামাফিয়া মোহিত দাস সাংবাদিক আশীষ তালুকদারের উপর ধারালো দাঁ দিয়ে আঘাত করার চেষ্টা চালায়। সাংবাদিকের শরীরে পরনে লেদারের জ্যাকেট থাকায় সে অল্পতে প্রাণে রক্ষা পায়। তাকে বাঁচাতে গিয়ে আহত হন বেশ কয়েকজন গ্রামবাসীও। কিছুক্ষণ পর সাংবাদিক আশিষ তালুকদার বুকে এবং পেটে প্রচন্ড ব্যথা অনুভব করতে পারাই পরিবারের লোকজনেরা ও স্থানীয় এলাকাবাসীরা তাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যায়।উত্তর ত্রিপুরা জেলা পানিসাগর থানার পুলিশকে রাতে এই ঘটনার ব্যাপারে জানানো হয়েছে কিন্তু কোন হেলদোল নেই ত্রিপুরা রাজ্য পুলিশের। আজ সকালে উত্তর ত্রিপুরা জেলা পানিসাগর পুলিস স্টেশনে গিয়ে সাংবাদিক আশীষ তালুকদার নেশা মাফিয়া মোহিত দাস, মন্তোস দাস, বীথিকা দাস,সুমি দাস সহ তার পরিবারের অন্যান্য লোকজনদের নাম ধাম দিয়ে পানিসাগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। এখন দেখার বিষয় ত্রিপুরা রাজ্যের উত্তর ত্রিপুরা জেলা পানিসাগর থানার পুলিশ অভিযুক্ত নেশা মাফিয়া মোহিত দাস সহ অন্যান্য লোকদের শাস্তি দেবার বিষয়ে কি ভূমিকা গ্রহন করে। ত্রিপুরা রাজ্যে এই নিয়ে এখনো পর্যন্ত ২৪ থেকে ২৫ জন সাংবাদিক দুষ্কৃতীদের হাতে আক্রান্ত হয়েছেন। যদি দিনের পর দিন এভাবে একের পর এক সাংবাদিক নিগৃহীত হতে থাকে তাহলে সাংবাদিকের ভবিষ্যৎ কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে প্রশ্ন কিন্তু রয়েই যাচ্ছে?

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

7 − 3 =

Back to top button