ত্রিপুরা

সংসারের অভাব অনটনের কারণে দিশেহারা হয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিল ১০৩২৩ এর চাকুরীচ্যুত শিক্ষকের একজন।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক,তেলিয়ামূড়া : একদিকে আগরতলা সিটি সেন্টারের সামনে চাকুরী ফিরে পাবার জন্য চাকুরীচ্যুত ১০৩২৩ এর শিক্ষকরা আন্দোলনরত , আর অন্যদিকে সংসারের অভাব অনটনের কারণে দিশেহারা হয়ে কোন ভরসা না পেয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিল ১০৩২৩ এর চাকুরী চ্যুত শিক্ষকের একজন উত্তম ত্রিপুরা । চাকরিচ্যুত হয়ে সংসার চালাতে না পেরে মানসিক ভাবে ভেঙ্গে পড়ে ১০৩২৩ এর শিক্ষক উত্তম ত্রিপুরা , সোমবার ভোর রাতে উত্তম আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে। ঘটনা রাজনগর পিআর বাড়ি থানাধীন ওয়াং ছড়ার কমলাকান্ত পাড়াতে । চাকুরী চ্যুত শিক্ষকের মৃত্যু কে কেন্দ্র করে শোকের ছায়া নেমে আসে। উচ্চ আদালতের রায়ে ১০৩২৩ এর শিক্ষক শিক্ষিকারা চাকুরীচ্যুত হয় । এর মধ্যে উত্তম ত্রিপুরা একজন। বয়স ৩২ বছর। স্ত্রী শেফালী ত্রিপুরা সহ দুই সন্তান নিয়ে ও মা-বাবা বোন মিলে সংসার। উত্তম ত্রিপুরার উপর ছিল সংসারের দায়িত্ব। চাকুরী চ্যুত হয়ে উত্তম ত্রিপুরা দিশেহারা হয়ে পড়ে। একদিকে ব্যাঙ্কের লোন , অন্যদিকে সংসার প্রতিপালন করতে গিয়ে ঋনগ্ৰস্ত হয়ে পড়ে । এছাড়া চাকুরী ফিরে পাবার কোন আশা ভরসা না পেয়ে হতাশ হয়ে পড়ে । সংসার প্রতিপালন করতে গিয়ে হিমসিম তার উপরে ব্যাঙ্ক লোনের নোটিশ ও ঋন গ্ৰহিতারা বাড়িতে আনাগোনা ।সব কিছু মিলিয়ে নিজেকে শেষ করার পরিকল্পনা নিয়ে নেয় চাকুরী চ্যুত উত্তম। তার জন্য দুই সন্তান সহ স্ত্রীকে সোমবারে বাপের বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় । স্ত্রী শেফালী ত্রিপুরা জানত না স্বামীর সাথে এই শেষ দেখা এবং কথা। সোমবার ভোর রাতে উত্তম ত্রিপুরা নিজ ঘরেই গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে নিজেকে ঋনগ্ৰস্ত থেকে মুক্ত করলো । এই দিকে উত্তম ত্রিপুরার স্ত্রী শেফালী ত্রিপুরা খবর পেয়ে দুই সন্তানকে নিয়ে ছুটে আসে বাড়িতে । স্বামীর এঅবস্থা দেখে বুকের উপর শুয়ে কান্নায় ভেঙে পড়ে। ঘটনার খবর পেয়ে পিআর বাড়ির থানার পুলিশ সহ মহকুমা পুলিশ আধিকারিক ছুটে গিয়ে উত্তম ত্রিপুরার ঝূলন্ত দেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়ে দেয় নিহারনগর প্রাথমিক স্বাস্ব্য কেন্দ্রে। পুলিশ অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা নিয়ে তদন্ত নেমেছে ।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × one =

Back to top button