ত্রিপুরা

বন্যহাতির তাণ্ডবে নাজেহাল তেলিয়ামুড়া মহুকুমা বনদপ্তর।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক,তেলিয়ামুড়া প্রতিনিধি : বন্যহাতির তাণ্ডবে নাজেহাল তেলিয়ামুড়া মহুকুমা বনদপ্তর এর অধীন লক্ষ্মীপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ৬ নং ওয়ার্ডের বেশ কয়েকটি বাড়িঘর। দীর্ঘদিন ধরেই বন্যহাতির তাণ্ডব চলছে ঐসকল এলাকার বিভিন্ন গ্রামে। গতকাল সারারাত বেবি বন্য হাতির দল তাণ্ডব চালায় ওই গ্রামে। দুটি পরিবারের দুটি ঘর সম্পূর্ণ ভেঙে দেয় বন্যহাতির দল। বারবার বনদপ্তর এ ফোন করেও বনদপ্তর কর্মীদের ঘটনাস্থলে আনা যায়নি। এলাকার দুই অভিভাবক প্রান্তুস সরকার এবং শ্যামল সরকারের সাথে কোনো এক ব্যাপারে কিছুদিন পূর্বে মতানৈক্য দেখা দেয়। জানা যায় এই দুজন ব্যক্তি শাসক দলের এলাকার নেতৃত্ব। অপরদিকে বনদপ্তর এর সাথে মতানৈক্যের ফলে ওই এলাকায় বনদপ্তর হাতি তাড়াতে আস্তে নারাজ। যার খেসারত দিতে হলো দুটি পরিবারকে। দুটি পরিবারের বেশকিছু ঘরের আসবাবপত্র ধ্বংস করে বন্য হাতির দল। এ নিয়ে গভীর আতঙ্কে রয়েছে 6 নং ওয়ার্ড এলাকার বাসিন্দারা। প্রতিরাতে হাতির দল তাণ্ডব চালাতে আসলেও বনকর্মীদের ফোন করে কোনভাবেই ঘটনাস্থলে আনা যাচ্ছে না। অপরদিকে বনকর্মীরা ফোন মারফত জানায় এলাকার এই দুই শাসকদলীয় মাতব্বর যদি বনদপ্তর এর সাথে কথা না বলে বনদপ্তরের কর্মীরা ওই এলাকায় আসবেনা বলে জানান এলাকার এক গৃহবধূ। একদিকে এলাকার মাতব বরদের প্রভাব ও বনদপ্তর এর সাথে লাগালাগির একপ্রকার খেসারত দিতে হচ্ছে 6 নং ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের। এ নিয়ে আজ দিনভর ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের গৃহবধূ ঘরে ঘরে জানালেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। একপ্রকার নিরাশ হয়েই শেয়ার একবার হাতির আক্রমণের একরাশ আশংকা নিয়ে ঘরে ফিরে গেলেন গৃহবধূ। শুধু তাই নয় আজকের রাত্রে ও যে নিশ্চিন্তে ঘুমাতে পারবেন ওই এলাকাবাসীরা তার কোন গ্যারান্টি নেই। সন্ধ্যা ঘনিয়ে আসতে আরো একবার বন্য হাতির দল ওই গ্রামে প্রবেশের অপেক্ষায়। যদি বনদপ্তর কর্মীদের না আসে তাহলে যে গ্রামটির বিশাল ক্ষতি হয়ে যাবে তা বলাই বাহুল্য। এ নিয়ে বিস্তর অভিযোগ একে একে করল গ্রামবাসীরা।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eight + ten =

Back to top button