ত্রিপুরা

আশাবাড়ি বিওপি’র জওয়ানদের দ্বারা আক্রান্ত কাঁটাতারের বেড়ার ওপার থেকে আসা ছাত্রছাত্রীরা।

আবু কাউছার, নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক,বক্সনগর : আশা বাড়ি বিওপি’র জওয়ানদের দ্বারা আক্রান্ত কাঁটাতারের বেড়ার ওপার থেকে আসা স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছাত্রছাত্রীরা। আক্রান্ত ছাত্রছাত্রীরা জানায়, প্রায় সময়ই সকাল ছয়টা থেকে তাদের প্রাইভেট টিউশন থাকে। কিন্তু কর্তব্যরত বিএস এফ জওয়ানরা সিমান্তের গেট খোলেন 8:45 মিনিটে। ফলে আশাবাড়ি বিওপি’র কাঁটাতারের বেড়ার 165, 168, 166,167,160 এবং 158 নাম্বার গেট দিয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের স্কুল কলেজ এবং টিউশনিতে আসা যাওয়াতে ভীষণ ভাবে সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। অনেক সময়ে স্কুল ছুটি দেয়া হয় বেলা ১ ঘটিকায়। কিন্তু ছাত্র-ছাত্রীদের ঘন্টার পর ঘন্টা সময় পর্যন্ত সীমান্তের গেটের সামনে অপেক্ষা করতে হয়। কাটা তারের এই গেট খুলে দেওয়া এবং গেট লাগানোটা যেন বিএসএফ এফের ইচ্ছাধীন ব‍্যাপার হয়ে দাড়িয়েছে। ফলে অনেক সময় দেখা গেছে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করতে করতে ছাত্র-ছাত্রীরা সারাদিন না খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ছে। আশা বাড়ি থেকে রহিমপুর গৌরাঙ্গলা পর্যন্ত সবকটি গেটে এই সমস্যা প্রতিনিয়ত হয়ে চলছে বলে ছাত্র ছাত্রীদের তীব্র অভিযোগ। তবে জোয়ানদের এমন ঘটনায় সংবাদ মাধ্যম সহ প্রশাসনিক উচ্চ পর্যায়ে বহু বার জানানো হলে কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না বলে তারা জানান। তাই অনেকটা বাধ‍্য হয়ে আজ সকাল সাড়ে দশটা থেকে সাড়ে বারোটা পর্যন্ত রহিমপুর এলাকার ছাত্র-ছাত্রীরা কলমচৌড়া থানার সামনে বক্সনগর টু সোনামুড়া মেন সড়ক অবরোধ করে। এদিনে ছাত্র ছাত্রীদের সঙ্গে ছিলেন রহিমপুর পঞ্চায়েত প্রধান আক্তার হোসেন। তাদের বক্তব্য, প্রধান আক্তার হোসেন নিজেও আজ এই সমস্যা প্রত্যক্ষ করেন। এরপর তিনি পোস্ট কমান্ডার সি. ই.ও.,এস.ডি.এম. এবং ডি.সি.পি’র নিকট মোবাইলের মাধ্যমে বিষয়টি অবগত করেন। পরবর্তীতে বাধ্য হয়ে রাস্তা অবরোধ করায় কলমচৌড়া থানার ও.সি. ভারত দেববর্মা এবং বক্সনগর আর. ডি. ব্লকের বিডিও ধ্রুতি শেখর রায়ের সমস্যা অতিশিঘ্রই সমাধানের জন্য প্রতিশ্রুতি দেবার পর অবরোধ তুলে নেওয়া হয়।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 + three =

Back to top button