ত্রিপুরা

সমস্ত কার্যকর্তাদের মনে রাখতে হবে, সংগঠনে শর্টকাট বলে কিছু হয় না : মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক,ত্রিপুরা : আজ ভারতীয় জনতা মহিলা মোর্চা বনমালীপুর মণ্ডলের নবম কার্যকারিনী বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন ত্রিপুরা রাজ্যের মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ত্রিপুরা প্রদেশ বিজেপি সভানেত্রী শ্রীমতি পাপিয়া দত্ত, ত্রিপুরা প্রদেশ বিজেপি সহ-সভাপতি তথা ত্রিপুরা খাদি ও গ্রামোদ্যোগ পর্ষদের চেয়ারম্যান রাজিব ভট্টাচার্যী সহ ত্রিপুরা প্রদেশ বিজেপি দলের অন্যান্য কার্যকর্তাগন। এদিন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব বলেন যে, সমস্ত কার্যকর্তাদের মনে রাখতে হবে, সংগঠনে শর্টকাট বলে কিছু হয় না। অনেক মানুষ এমন রয়েছেন যাঁরা সারা জীবন রাজনীতি করেও বিধায়ক, সাংসদ হতে পারেন না। আমরা তো সেদিক থেকে ভাগ্যবান।আমাদের কাজ হবে সংগঠনকে আরও শক্তিশালী করা। বনমালীপুর মণ্ডল এলাকার সমস্ত বাড়িতে স্বামী বিবেকানন্দের ছবি পৌঁছে দিতে হবে। সেই ছবি যেন স্বামীজির বাণী সম্বলিত হয়। কমিউনিস্টদের বাড়িতেও সেই ছবি দিতে হবে।আরও একটি কাজ মহিলামোর্চার কার্যকর্তাদের গুরুত্ব দিয়ে করতে হবে। তা হলো, বমমালীপুরে মোট ১৬ হাজার ৭৫৬টি পরিবার রয়েছে। প্রতি তিনটি পরিবার পিছু একটি পরিবারের মহিলাকে সংগঠনে শামিল করার কাজ করতে হবে। হিসেব করলে সংখ্যাটা দাঁড়ায় পাঁচ হাজার ৫৮৫ জন। এই মহিলাদের এককাট্টা করার কাজ করতে হবে। সংগঠন মজবুত করার পাশাপাশি নিজেদের ব্যক্তিত্ব বিকাশের কাজও করতে হবে। একই সঙ্গে আমাদের এটা বুঝে নিতে হবে যে আমরা কী শুনতে চাই। আমরা যা শুনতে চাইব তাই শুনতে পাব।মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব আরো বলেন যে,আমি সকল কার্যকর্তাকে একটাই কথা বলব, কী পেয়েছি আর কী দিয়েছি এই হিসেব করবেন না। যাঁরা এই হিসেব করতে যাবেন জেনে রাখবেন তাঁদের রাজনৈতিক জীবনের বিনাশ অবশ্যম্ভাবী। তাই আমাদের ইতিবাচক মানসিকতা নিয়েই সংগঠনের কাজ করতে হবে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eight − 6 =

Back to top button