ত্রিপুরা

দীপাবলির আনন্দে অন্ধকারের গ্লানি ভুলে আলোয় উদ্ভাসিত হবে সমগ্র দেশ।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক,ত্রিপুরা :- আসন্ন আলোর উৎসব দীপাবলিকে সামনে রেখে গ্রাম থেকে পাহাড় সকল মানুষ মেতে উঠবে আলোর উৎসব দীপাবলির আনন্দে। অন্ধকারের গ্লানি ভুলে আলোয় উদ্ভাসিত হবে সমগ্র দেশ। যদি ও এবছর মহামারি করোনা আবহে দীপাবলীর প্রস্তুতিতে বেশ প্রভাব ফেলছে। তারপরও সর্বত্র প্রস্তুতি তুঙ্গে।।দীপাবলি উৎসব তথা আলোর উৎসব, রং বাহারি নানা প্রকার ইলেকট্রনিক লাইট বাজারে এলেও বর্তমান যুগে গ্রাম বাংলা সহ শহরতলীতে হারিয়ে যায়নি মাটির প্রদীপের কদর। এখনো মৃৎশিল্পীদের তৈরি মাটির প্রদীপের কদর রয়েছে প্রচুর। যাদের নিপুণ হাতে তৈরি হয় মাটির প্রদীপ সেই প্রদীপ শিল্পীরা কেমন আছেন তা জানতে আমাদের News Bengal 365 এর ক্যামেরা ছুটে গিয়েছিল তেলিয়ামুড়া মহকুমার তেলিয়ামুড়া পৌর পরিষদের ২ নং ওয়ার্ড তথা পাল পাড়ায় মৃৎ শিল্পী ধীরেন্দ্র রুদ্র পালের বাড়িতে। তিনি জানান অন্যান্য বছর দশ থেকে বারো হাজার প্রদীপ তৈরি করতাম কিন্তু এবছর করোনার জন্য মাত্র দু’তিন হাজার প্রদীপ তৈরি করেছি। কিন্তু যে প্রদীপগুলি তৈরি করেছি সেগুলি বাজারে বিক্রি করতে পারবো কিনা তা নিয়ে কিন্তু একটা চিন্তা থেকেই যাচ্ছে। তিনি জানান এই এলাকার প্রায় ২০ জন মৃৎশিল্পী রয়েছে।। কিন্তু যুগের পরিবর্তনে ও মানুষের চাহিদার তাগিদে বাজারে বর্তমানে নিত্য-নতুন বাহারি রং -বেরঙ্গের লাইট আশায় প্রদীপের চাহিদা আগের তুলনায় কমে গিয়েছে। তবে প্রদীপ তৈরি এখনো করে যান গ্রাম বাংলার মৃৎশিল্পীরা।।আর মাত্র কয়েক দিনের অপেক্ষা তারপরই আলোর উৎসব দীপাবলি। তাদের হাতের নিপুন ছোঁয়ায় প্রস্তুতকৃত প্রদীপের আলোর রোশনাই আলোকিত হোক সকলের জীবন চাইছেন মৃৎ শিল্পীরা। এদিকে আগরতলা মোম ফ্যাক্টরিতে জোর কদমে চলছে মোম বানানোর প্রস্তুতি।‌ আশ্বিন মাসের কৃষ্ণা ত্রয়োদশীর দিন ধনতেরাস অথবা ধনত্রয়োদশী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দীপাবলি উৎসবের সূচনা হয়।। নবরাত্রি উৎসব অথবা বাঙালিদের প্রধান উৎসব দুর্গোৎসব শেষ হওয়ার ১৮ দিন পরে দীপাবলি উৎসব শুরু হয়।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × three =

Back to top button