ত্রিপুরা

ফিশারি ট্রেনিং কাম ডেমোনস্ট্রেশন ইনস্টিটিউট এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিপ্লব কুমার দেব

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক, ত্রিপুরা: আগরতলার যোগেন্দ্রনগরে রঙ্গময়ী রিসার্চ এন্ড ট্রেনিং ইনস্টিটিউট অব অ্যাকুয়াকালচার এর, ফিশারি ট্রেনিং কাম ডেমোনস্ট্রেশন ইনস্টিটিউট এর উদ্বোধনী করেন ত্রিপুরা রাজ্যের মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। এছাড়া ও উপস্থিত ছিলেন পূর্বোদয় সামাজিক সংস্থার সাধারন সম্পাদিকা তথা মুখ্যমন্ত্রীর স্ত্রী শ্রীমতি নীতি দেব, ত্রিপুরা বিধানসভার স্পিকার তথা বিধায়ক রেবতী মোহন দাস, TIDC চেয়ারম্যান টিংকু রায় সহ অন্যান্যরা। এদিন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব আগরতলার যোগেন্দ্রনগরে রঙ্গময়ী রিসার্চ এন্ড ট্রেনিং ইনস্টিটিউট অব অ্যাকুয়াকালচার এর, ফিশারি ট্রেনিং কাম ডেমোনস্ট্রেশন ইনস্টিটিউট এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষ ঘুরে দেখেন। মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব বলেন যে, এই পদ্ধতিতে মাছ চাষ অত্যন্ত লাভজনক। তিনি রাজ্যের যুবাদের অনুরোধ করেন এ পদ্ধতি অবলম্বন করার মাধ্যমে স্বাবলম্বী হয়ে উঠার জন্য I মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব আরো বলেন যে, বর্তমান বিজেপি সরকার মৎস্যচাষীদের সম্মান দেওয়ার জন্য ঋণ দেওয়ার বন্দোবস্ত করেছে। একবার নয় তিন বার ঋণ দেওয়া হবে মৎস্যজীবীদের। যে ভাবে একজন বাবা তাঁর ছেলেকে স্বনির্ভর করার জন্য আন্তরিক প্রচেষ্টা করে সরকারও সেই একই পিতৃস্নেহে এই পদক্ষেপ শুরু করেছে। মৎস্যজীবীরা যাতে সম্মানের সঙ্গে তাঁদের জীবিকা নির্বাহ করেন, সে ব্যাপারে অগ্রাধিকার রয়েছে সরকারের। মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব আরো বলেন যে,রাজ্যের স্থানীয় জনগণ যে ব্যবসা জানে রাজ্য সরকারের প্রথম কর্তব্য সে ব্যবসাকে সহযোগিতা করা। ত্রিপুরা রাজ্যে 32% জনজাতি এবং 18% তপশিলি জাতি জনগণ রয়েছে এবং রাজ্যে 7500 মৎস্য চাষী রয়েছে। আমাদের সরকার আসার পর প্রথমবার রাজ্যের মৎস্যচাষীদের তালিকা তৈরি করা হয়। আর তাদের সাথে মিলে মোদীজির সরকারের বিভিন্ন সুবিধাযুক্ত ঋনের মাধ্যমে আগামী দুই বছরের মধ্যে আমরা মৎস্য উৎপাদনে স্বয়ম্ভর হতে পারব।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button