রাজ্য

সাংবাদিকদের ‘দু পয়সার প্রেস’ বলার কথা অবলীলায় অস্বীকার করলেন সাংসদ মহুয়া মৈত্র।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক, নদীয়া: রবিবার নদীয়ার গয়েশপুরের সুকান্ত সদনে তৃণমূল কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করতে ঢোকার সময় সাংসদ ও নদীয়া জেলা সভাপতি মহুয়া মৈত্রকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান তৃণমূলের একাংশ। তৃণমূলের প্রাক্তন শহর সভাপতি মিন্টু দের নেতৃত্বে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন কয়েকজন কর্মী-সমর্থক। তাঁদের হাতে দেখা যায় বেশ কিছু প্ল্যাকার্ড। তাতে লেখা, বহিরাগত শহর সভাপতিকে মানছি না মানব না। দুই গোষ্ঠীর মাঝখানে পরে সাংসদ মহুয়া মৈত্র ধৈর্য হারিয়ে তাঁর যত রাগ উপস্থিত সাংবাদিকদের উপর ঢেলে দেন। তাঁকে বলতে শোনা যায়, ‘কে এই দুই পয়সার প্রেসকে ভিতরে ডাকে, সরাও এই প্রেসকে। তোমরা কেন প্রেসকে ডাক কর্মীদের মিটিঙে?’ যা নিয়ে রীতিমতো ক্ষোভে ফেটে পড়েন সাংবাদিকরা। মিটিং সেরে ফেরার পথে সাংবাদিকদের কেন তিনি ‘দু’পয়সার সাংবাদিক’ বললেন এই প্রশ্ন মহুয়া মৈত্রকে করা হলে তিনি উদ্ধত ভঙ্গিমায় বলেন, ‘আপনারা রেকর্ড করেছেন কেন ? আপনাদের তো আমি রেকর্ড করতে বলিনি’। তারপর তিনি সাংবাদিকদের এড়িয়ে চলে যাওয়ার সময় বলেন, ‘ছেড়ে দাও ভাই, আমি কিছু জানি না। এই ঘটনার পর গয়েশপুর পুরসভার প্রশাসকমণ্ডলীর চেয়ারপারসন মরণ কুমার দে বলেন, “বহিরাগতকে বহিরাগত বলা হয়েছে। দলকে এই বিষয়টি দেখতে হবে।” তবে প্রকাশ্যে এই গোষ্ঠীদ্বন্দের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন তৃণমূলের বর্তমান শহর সভাপতি সুকান্ত চ্যাটার্জি। তিনি বলেন, “এই বিক্ষোভ দলের ক্ষতি। সবাইকেই আমন্ত্রণ করা হয়েছে। আমি ইউপি, বিহার থেকে আসিনি। আমি এখানকার বাসিন্দা”।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty − 13 =

Back to top button