রাজ্য

পূর্ব মেদিনীপুরেই নাম না করে শুভেন্দুকে কটাক্ষ ফিরহাদ হাকিমের।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক : খোদ শুভেন্দু গড়ে দাড়িয়ে তাকে খোচা দিলেন পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। অধিকারী পরিবারের জেলা পূর্ব মেদিনীপুরে দাঁড়িয়ে বিবেকানন্দের পাল্টা রবীন্দ্রনাথকে হাতিয়ার করে নাম না করে শুভেন্দুর ” আমিত্ব”র জবাব দিলেন ফিরহাদ। সরাসরি মন্ত্রীসভার ” কলিগ” শুভেন্দুর নাম না নিলেও, রাজনৈতিক মহলের মতে লক্ষ্য  রাজ্যের সেচ, পরিবহন মন্ত্রীই।  আর এই মন্তব্যতেই খানিকটা হলেও স্পষ্ট শুভেন্দুর দলে থাকার বিষয়টি নিয়ে আর খুব একটা আশা করছে না তৃণমূল নেতৃত্ব। রাজনৈতিক মহলের মতে, শুক্রবার ফিরহাদের বক্তব্য পুরোটাই মমতা বন্দ্পাধ্যায়ের “অনুমোদন”এই। ফের আরও  একবার স্পষ্ট হল, তৃণমূল যতই দাবি করুক পরিস্থিতি স্বাভাবিক, ভিতরে ভিতরে আগুন জ্বলছে। ভগিনী নিবেদিতার জন্মদিনে নিউ দীঘায় একটি অনুষ্ঠানে ভাষণ দিতে গিয়ে নাম না করে নিজের দলকেই ঠোকেন শুভেন্দু। স্বামী বিবেকানন্দের বানী তুলে ধরে বলেন, ‘একক শক্তি দিয়ে কোনও কাজ কেউ করতে পারেন না। স্বামী বিবেকানন্দ এটা বলেছিলেন। স্বামী বিবেকানন্দ বলেছিলেন আমি, আমি করা হল সর্বনাশের মূল।’ আর এই বক্তব্য ঘিরে শুরু হয় জল্পনা। প্রশ্ন ওঠে তবে কি  সরাসরি  মমতা বন্দ্পাধ্যায়কেই আক্রামণ করলেন শুভেন্দু?  দলের অনুষ্ঠেনে তাঁকে দেখা যায় না বলে অভিযোগ। অরাজনৈতিক ব্যানারে আয়োজিত বিভিন্ন অনুষ্ঠানে নিয়মিত যোগ দেন তিনি। যাতে থাকে না তৃণমূলের প্রতীক বা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি। এই পরিস্থিতিতে শুভেন্দুর বিজেপিতে যোগদান নিয়ে মাঝে মাঝেই জল্পনা ছড়ায়।শুক্রবার জেলা সফররত মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে শুভেন্দুকে নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘পথ ভাবে আমি দেব, রথ ভাবে…… হাসেন অন্তর্যামী।’ ফিরহাদের এহেন জবাবে নতুন করে জল্পনা শুরু হয়েছে, তবে কি প্রকাশ্যে শুভেন্দুকে ঝেড়ে ফেলার প্রক্রিয়া শুরু করল তৃণমূল?

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

20 + 20 =

Back to top button