রাজ্য

বিজেপি সাংসদ সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়ার নামে মিসিং ডায়েরি তৃণমূলের।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক : এলাকায় আসেন না সাংসদ। আর এবার সেই ” নিখোজ” বিজেপি  সাংসদের বিরুদ্ধে নিখোজ ডায়েরি করল তৃণমূল। যা নিয়ে রীতিমত চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে। বর্ধমান দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়া। তবে ভোটে জিতলেও দেখা যায় না এলাকায়। যা নিয়ে এখন প্রশ্ন, কোথায় তিনি?‌ তিনি কী নিখোঁজ?‌ এমনটাই  অভিযোগ রাজ্যের শাসকদল তৃণমূলের। ইতিমধ্যেই দুর্গাপুরের কোকওভেন থানায় বিজেপি সাংসদ সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়ার নামে নিখোঁজের অভিযোগে একটি মিসিং ডায়েরি করেন তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা। যা নিয়ে শুরু হয়েছে  শোরগোল। স্থানীয়দের অভিযোগ, এলাকায় প্রায় দেখাই যায় না বিজেপি সাংসদকে। দলীয় নেতৃত্বের নির্দেশে এদিন তাই করলেন তৃণমূল কর্মীরা। থানাও মিসিং ডায়েরি নিয়েছে বলে খবর। সবমিলিয়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। আর একটু চাপ বেড়েছে গেরুয়া শিবিরের।সামনে বিধানসভা নির্বাচন। সেই সময় দাড়িয়ে তৃণমূলের  এই পদক্ষেপ গেরুয়া শিবিরের অনেকটাই চাপ বাড়াবে বলে মনে করা হচ্ছে। তৃণমূলের পশ্চিম বর্ধমান জেলা সাধারণ সম্পাদক চন্দ্রশেখর বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘ এলাকার মানুষ খুজেই পায় না উনাকে।  কোনও খোঁজই নেই সাংসদের। এলাকায় শেষ কবে তাঁর দেখা মিলেছে, কেউ বলতে পারছেন না। আমরা তাই বাধ্য হয়ে পুলিশকে তাঁর নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার কথা জানালাম।’‌ তবে জেলা বিজেপি নেতৃত্বের পাল্টা অভিযোগ, নির্বাচনে হেরে গিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।   বিজেপি সাংসদ অনেক কাজ করছেন। কিন্তু সেগুলি না দেখে অপপ্রচার করছে রাজ্যের শাসকদল। উল্লেখ্য, চলতি বছরের গোড়ায় ভেঙে পড়ে বর্ধমান রেল স্টেশন ভবনের সামনের একটি অংশ। সেই দুর্ঘটনায় একজন মারাও যান। তখন ইতিবাচক ভূমিকা নিতে দেখা যায় জেলা তৃণমূলকে। রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ–সহ বর্ধমান শহরের প্রথমসারির তৃণমূল নেতারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে যান। রাতও জাগেন। পুলিশ–প্রশাসনও রেলকে সাহায্য করে। কিন্তু দেখা মেলেনি কেবল সাংসদের। বস্তুত ওই দুর্ঘটনার পর আলুওয়ালিয়াকে দেখা যায়নি বর্ধমান শহরে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button