রাজ্য

আর্থিক দুরবস্থা,তাই নিজেই গাড়ি চলিয়ে মৃতদেহ পৌছে দিলেন বিধায়ক।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক: মানবিকতার নজির এবার বিধায়কের। নিজের বিধানসভা কেন্দ্রের বাসিন্দা মৃত যুবকের দেহ পৌছে দিলেন কংগ্রেস বিধায়ক মিল্টন রশিদ। প্রথমবার বীরভুমের হাসন বিধানসভা কেন্দ্র থেকে ভোটে জিতে বিধায়ক হয়েছেন পেশায় আইনজীবী এই তরুন বিধায়ক। এলাকায় বড়াবড়ই পর উপকারী বলে পরিচিত মিল্টন রশিদ। বিধায়ক হয়েও বদল আসেনি সেই অভ্যাসে। প্রায় প্রতিদিনই রোগী নিয়ে মোটর সাইকেল চলিয়ে আসতে হয় রামপুরহাট মহকুমা হাসপাতালে। সোমবার লক ডাউনে তার অন্যথা হয়নি। এদিন ও নিজের বিধানসভা কেন্দ্রের থেকে রামপুরহাট হাসপাতালে আসেন তিনি। গত ২ দিন আগে বিষ খেয়ে এই হাসপাতালেই ভর্তি হন মাড়গ্রামের বাসিন্দা কুরবান শেখ। আজ সকালেই মৃত্যু হয়  মানসিক বিকার গ্রস্থ অনাথ কুরবানের। তারপর? মিল্টন রশিদের বক্তব্য,” দেখুন ওই যুবকের মা-বাবা, আত্মীয়স্বজন কেউ নেই। তাই ওর দেহ নিয়ে যাওয়ার মত কেউ নেই।”
হাসপাতালে থাকাকালীন এই খবর পেয়ে আর দেরী করেন নি মিল্টন। মাড়গ্রাম ব্লক অফিসে ফোন করে নিজেরই বিধায়ক অনুদানের অর্থে কেনা শববাহী গাড়ি চেয়ে নেন তিনি। কিন্তু সমস্যা সেখানেও। বিধায়কের বক্তব্য, ” ওই যুবক করোনায় মারা গিয়েছে, এই ভয়ে কোন ড্রাইভার আসতে রাজি হচ্ছিল না। তাই আমাকেই উদ্যোগ নিতে হল।” নিজেই মোটরসাইকেল করে চলে আসেন ব্লক অফিসে।  হাতে তুলে নেন স্টিয়ারিং। গাড়ি নিযে সোজা চলে আসেন রামপুরহাট হাসপাতালে। পাজাকোলা করে গাড়িতে তোলেন মৃতদেহ। তারপর গাড়ি নিয়ে সোজা পৌছে যান মাড়গ্রামের কররস্থানে। মিল্টন রশিদের বক্তব্য, ” দেখুন আমি কোন মহান কিছু করিনি। একটা মানুষ শুধু পয়সার অভাবে সে মাটি পাবে না? তাই আমি না হয় পৌছে দিলাম, এটা নতুন কি?”

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button