রাজ্য

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন পূর্ণিমা মিলনী সংঘের পক্ষ থেকে করোনা সচেতনতায় দেয়াল অংকন।

মলয় দে নদীয়া :-প্রায় এক বছর ধরে চলে আসা ভোট যুদ্ধের প্রস্তুতি হিসেবে কিছুদিন আগে পর্যন্তও চলেছে দেওয়াল দখলের লড়াই। প্রখর রৌদ্রে হোক বা রাতের অন্ধকারে কর্মীদের শ্রম নষ্ট করে তাতেই প্রার্থী সম্পর্কে ফুটে উঠেছিলো “ঘরের ছেলে” “বিশিষ্ট সমাজসেবী” “এলাকার রূপকার” , “গরিবের ভগবান” “প্রধানমন্ত্রী বা মুখ্যমন্ত্রীর আশীর্বাদ ধন্য”, “শোষিত নিপীড়িত প্রতিবাদী মুখ” এইরকমই নানা বিশেষণ। যদিও ভোটের পর তাদের দেখা নেই! তবে হ্যাঁ , ঘরের খেয়ে বনের মোষ তাড়ানো আবেগি ছাত্র যুবরা স্বভাব সিদ্ধভাবেই গড়ে থাকেন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ! করোনা পরিস্থিতিতে পরিযায়ী শ্রমিকদের পাশেই হোক বা লকডাউনে গৃহবন্দীদের রান্নার হাড়ি চাপাতে সহযোগিতা করেছেন এ ধরনের বহু সংগঠন। আবারো সেই পরিস্থিতি হাজির হয়েছে ভোট পরবর্তী সময়ে, কোথাও বা করনা সচেতনতা বার্তা ছড়াতে, কোথাও প্রান্ত্রিকদের সহযোগিতায়, পথের সারমেয় হোক বা মানসিক ভারসাম্যহীন মানুষ তাদের কথা ভাবে একমাত্র এধরনের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। এ রকমই এক চিত্র ধরা পড়লো আমাদের ক্যামেরায় , শান্তিপুর শ্যামবাজার পেট্রোল পাম্পের মাঠে শান্তিপুর পূর্ণিমা মিলনী সংঘের পক্ষ থেকে একটি সুবিশাল দেওয়াল অসচেতন দের সচেতনতা ফেরাতে অংকন করলো নানান স্বাস্থ্যবিধির ছবি। এ বিষয়ে পূর্ণিমা মিলনী সংঘের পক্ষ থেকে বিশ্বজিৎ রায় জানান ” শান্তিপুর শহরের প্রধান রাজপথ এর পাশে এই দেওয়াল চিত্রাংকন চোখে পড়বে সকলের! প্রতিনিয়ত এভাবে দেখতে দেখতে গড়ে উঠবে সু অভ্যাস। সংগঠনের সদস্যরাই আগামীতেও আরো দু’একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে এ ধরনের দেওয়াল চিত্র অংকন করবে বলে জানান তিনি।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × 1 =

Back to top button