রাজ্য

ক্ষমতায় এলে গন্ধেশ্বরী- দ্বারকেশ্বর নদ প্রকল্প রূপায়িত হবে : অমিত শাহ

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫, বাঁকুড়া : বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় এলে বাঁকুড়ার মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি পূরণ করা হবে, যা হলো গন্ধেশ্বরী – দ্বারকেশ্বর নদ প্রকল্প। এই প্রকল্প রূপায়ণে জেলার আটত্রিশ হাজার হেক্টর জমি তিন ফসলী হবে। 3000 কোটি টাকার এই প্রকল্পের রূপরেখা তৈরি করা হয়েছে। সোমবার দলীয় প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচারে এসে বাঁকুড়ার খাতড়া শহরের পাইপ গ্রাউন্ডে এরকম কথাই জানালেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী তথা সর্বভারতীয় বিজেপি নেতা অমিত শাহ। সোমবার নির্দিষ্ট সময়ের বেশ কিছুক্ষণ পরে দুপুর 2 টো 13 মিনিট নাগাদ খাতড়া শহরের পাইপ গ্রাউন্ডে সভামঞ্চে বক্তব্য শুরু করেন। তিনি বলেন, ‘সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্য নিয়ে আমরা পশ্চিমবঙ্গে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে চলেছি এবারের বিধানসভায়। সেই পরিবেশ তৈরী হয়ে গেছে। রাজ্যের সরকারের অসহযোগিতায় বহু প্রকল্প থমকে থাকার ফলে বেকার দিন দিন বাড়ছে।আমরা ক্ষমতায় এলে প্রথম ক্যাবিনেট মিটিং এ আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের প্রত্যেকটি পরিবারকে 5 লক্ষ টাকার নিশ্চিত গ্যারান্টি কার্ড দেব,সেই সাথে কিষান সম্মান নিধি চালু করে এককালীন 18 হাজার টাকা প্রত্যেক চাষির একাউন্টে জমা দেব। দিদি এই সুযোগগুলো থেকে আপনাদের বঞ্চিত করে রেখেছেন।’ অমিত শাহ আরো বলেন, ‘এই রাজ্যের সর্বত্র ভ্রষ্টাচার চলছে। কাটমানি, কয়লা পাচার, গরু পাচার, আমফানের টাকা লুট তো আছেই, সব থেকে বড় কথা হল একদিকে ভাইপোর তোলাবাজি সিন্ডিকেট অপরদিকে অনুপ্রবেশকারীদের রাজ্যে ঢুকিয়ে দিয়ে ভোটব্যাঙ্ক ভরাচ্ছেন দিদি। ভোটের পর মানুষের কাছে এই অনাচারের জবাব দিতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘115 টি কেন্দ্রীয় প্রকল্প চলছে এই রাজ্যে। যেগুলোকে নিজের প্রকল্প বলে চালাচ্ছেন দিদি। দুর্ঘটনায় দিদির পায়ে আঘাত লেগেছে, মানুষকে জানালেন উনাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া হয়েছে। এখন ঊনার নাটক বাজি মানুষ ধরে ফেলেছেন।’ তিনি দাবি করেন, সারা রাজ্যে দিদির আমলে 130 জন বিজেপি কর্মী খুন হয়েছেন। যার মধ্যে বাঁকুড়া জেলার কয়েকজন আছেন। অমিত সাহ বলেন, ‘ক্ষমতায় এলে আদিবাসীদের উপর অত্যাচার বন্ধ করে জল, জমি, জঙ্গলের অধিকার ফিরিয়ে দেব।’ অমিত শাহ বিকেল দুটো ৩৫ মিনিটে তার বক্তব্য শেষ করেন। এদিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন বাঁকুড়ার সাংসদ ডাক্তার সুভাষ সরকার এবং রানিবাঁধ, রাইপুর ও তালডাংরা কেন্দ্রের 3 বিজেপি প্রার্থী।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × 2 =

Back to top button