ক্রিকেট

তীরে এসে তরী ডুবল নাইটদের ৷ শেষপর্যন্ত হারতে হল কেকেআরকে।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক:- শেষপর্যন্ত হারতে হল কেকেআরকে। ব্যর্থ হল মর্গ্যান এবং রাহুল ত্রিপাঠির দুরন্ত লড়াইও। রান তাড়া করতে নেমে ১৮ রান দূরেই থেমে যায় কলকাতার ইনিংস। দিল্লি শিবিরে লড়াইটা পৌঁছে দিয়েছিলেন ইয়ন মর্গ্যান ও রাহুল ত্রিপাঠী। ২২৯ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১২২ রানের ভিতরেই ৬ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছিল কেকেআর। সেখান থেকেই পাল্টা লড়াই শুরু করলেন ইংরেজ অধিনায়ক এবং এবারের আইপিএলে প্রথম খেলতে নামা রাহুল ত্রিপাঠী। মর্গ্যান করলেন ১৮ বলে ৪৪। একটি চার ও পাঁচটি ছয় মেরেছেন। তার মধ্যে রাবাডার এক ওভারে তিনটি ছয়। রাহুল ত্রিপাঠীর অবদান ১৬ বলে ৩৬। তিনটি চার ও তিনটি ছয় দিয়ে সাজানো ইনিংস। কিন্তু কেকেআরকে জেতানোর জন্য তা যথেষ্ট ছিল না। ২০ ওভার শেষে নাইটরা থামল ২১০/‌৮ রানে। কলকাতা হারল ১৮ রানে। টস জিতে এদিনও শুরুতে ফিল্ডিং নিয়েছিলেন কার্তিক। কিন্তু দিল্লি ব্যাটসম্যানরা কাউকেই রেয়াত করেননি। পৃথ্বী শ করলেন ৪১ বলে ৬৬। শিখর ধাওয়ানের সংগ্রহ ২৬। শুরুটা ভাল হওয়ার পর মারতে শুরু করেন অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার। তিনিই ম্যাচের সেরা। করলেন ৩৮ বলে অপরাজিত ৮৮। ইনিংসে রয়েছে ৭টি চার ও ৬টি ছয়। ঋষভ পন্থ করলেন ১৭ বলে ৩৮। তীরে এসে তরী ডুবল নাইটদের ৷ শারজায় ১৮ রানে ম্যাচ জিতে নিল দিল্লি ক্যাপিটালস ৷ কেকেআর বোলারদের নিয়ে বলার কিছুই নেই। একমাত্র রাসেল কিছুটা নিয়ন্ত্রিত বোলিং করলেন। পেলেন ২ উইকেট।  দিল্লি শেষ করল ২২৮/‌৪ রানে। জবাবে শুরু থেকেই কলকাতা চাপে। এদিনও রান পাননি সুনীল নারিন। শুভমান গিল করলেন ২৮। টপ অর্ডারে রান একমাত্র নীতিশ রানার। তাঁর অবদান ৩৫ বলে ৫৮। মারলেন ৪টি চার ও সমসংখ্যক ছয়। রাসেল আবার ব্যর্থ। দীনেশ কার্তিক আর কবে রান পাবেন তা কেউ জানে না। লড়াইটা করলেন মর্গ্যান ও ত্রিপাঠী। দিল্লির হয়ে অনরিচ নর্চজে পেলেন ৩ উইকেট। হর্ষল প্যাটেল পেলেন ২ উইকেট। কেকেআর বোলারদের মধ্যে এদিন বলার মতো পারফরম্যান্স শুধুমাত্র অ্যান্দ্রে রাসেলের ৷ ৪ ওভারে ২৯ রান দিয়ে ২ উইকেট নেন তিনি ৷ বাকিরা সকলেই চূড়ান্ত ব্যর্থ ৷

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button