অন্যান্য

-: অমৃতকথা :-

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক :বাংলা দিনপঞ্জী :সুপ্রভাত, আজ ৫ই কার্ত্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (১৮৫ রামকৃষ্ণাব্দ) বৃহস্পতিবার (ইং : ২২শে অক্টোবর ২০২০) ।তিথি : আজ শুদ্ধ আশ্বিন শুক্লা ষষ্ঠী দিবা ১।১৩ পর্যন্ত ।* আজ শ্রীশ্রী শারদীয়া দুর্গা ষষ্ঠী । পূর্বাহ্ণ ৯।২৮ মধ্যে শ্রীশ্রীশারদীয়া দুর্গাদেবীর ষষ্ঠাদি কল্পারম্ভ ও ষষ্ঠীবিহিত পূজা প্রশস্তা । সায়ংকালে দেবীর আমন্ত্রণ ও অধিবাস ।           

 -: অমৃতকথা :- “ব্রহ্ম ও তৎশক্তি অভেদ – এই শাক্ত সিদ্ধান্তটি সামবেদীয় কেনোপনিষদের উপাখ্যান হইতে জানা যায় : দেবসুর-সংগ্রামে ব্রহ্ম শক্তি দ্বারাই দেবতাদের বিজয় হইল । স্বশক্তিতে জয়লাভ হইয়াছে মনে করিয়া দেবগণ গৌরবান্বিত হইলেন । তাঁহাদের মিথ্যাভিমান অপনোদন করিবার জন্য স্বশক্তিপ্রভাবে ব্রহ্ম বিস্ময়কর মূর্তিতে দেবগণের সম্মুখে আবির্ভূত হইলেন । দেবগণ আবির্ভূত পূজ্যরূপকে জানিতে না পারিয়া অগ্নিকে তৎসমীপে প্রেরণ করেন । পূজ্যরূপী ব্রহ্ম অগ্নিকে জিজ্ঞাসা করিলেন, “তোমার নাম ও শক্তি কি ?” অগ্নি বলিলেন, “আমি অগ্নি নামে প্রসিদ্ধ । এই পৃথিবীতে যাহা কিছু আছে তৎসমুদয় আমি দগ্ধ করিতে পারি ।” ব্রহ্ম অগ্নির সম্মুখে একটি তৃণ স্থাপন করিয়া উহা দগ্ধ করিতে বলিলেন । অগ্নি সর্ব-শক্তি-প্রয়োগেও তৃণখণ্ড দগ্ধ করিতে অসমর্থ হইয়া অবনত মস্তকে দেবতাগণের সমীপে ফিরিয়া আসিলেন । ব্রহ্ম সমীপে বায়ু গমন করিলে ব্রহ্ন পূর্ববৎ তাঁহার নাম ও শক্তি জিজ্ঞাসা করিয়া জানিলেন, ইনি বায়ু এবং পৃথিবীর সব কিছুই উড়াইয়া লইতে সমর্থ । ব্রহ্ম একখণ্ড তৃণ বায়ুর সম্মুখে রাখিলেন । কিন্তু বায়ু  স্বশক্তির প্রভাবে উহা উড়াইতে অসমর্থ হইয়া লজ্জিতমুখে পলায়ন করিলেন । এইভাবে একে একে সবদেবতা ব্রহ্মের সমীপে এলেন কিন্তু কেউই নিজেদের শক্তি প্রমাণ করতে পারলেন না । অনন্তর ইন্দ্র ছদ্মবেশী ব্রহ্মের সমীপে উপস্থিত হইলে ব্রহ্ম অন্তর্হিত হইলেন এবং তৎপরিবর্তে আকাশে সুশোভনা উমা হৈমবতী দেবীকে ইন্দ্র দর্শন করিলেন । দেবী তাঁহাকে জানাইলেন যে, ব্রহ্মশক্তির দ্বারা দেবতাগণ শক্তিশালী এবং অসুর-সংগ্রামে বিজয়ী ।” স্বামী জগদীশ্বরানন্দ অনুদিত শ্রীশ্রীচণ্ডীর ভূমিকা থেকে সঙ্কলিত ।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ten + 18 =

Back to top button