অন্যান্য

অমৃতকথা

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক:- বাংলা দিনপঞ্জী :সুপ্রভাত, আজ  ১২ই আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (১৮৫ রামকৃষ্ণাব্দ) মঙ্গলবার (ইং : ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০) ।তিথি : আজ মল-আশ্বিন শুক্লা ত্রয়োদশী রাত্রি ১০।৩৬ পর্যন্ত ।* আজ বাংলা তারিখ অনুযায়ী অমরাত্মা পণ্ডিত ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের জন্মদিন (জন্ম : ১২ই আশ্বিন, ১২২৭ বঙ্গাব্দ) ।           

অমৃতকথা  “এই জটিল জীবন প্রবাহে প্রত্যেক মানুষই আনন্দকে খুঁজছে । আনন্দই মানুষের প্রকৃত চাহিদা । আনন্দ ছাড়া লোকে অন্য কিছু ভাবতে পারে না । আনন্দের ভাব চোখে-মুখে ফুটে উঠলে প্রত্যেকেই খুশি হয় । আর আনন্দ প্রকাশের একটি বড় মাধ্যম হল হাসি হাসি ভাব । সর্বদা হাসি হাসি মুখে থাকা হল জ্ঞানের লক্ষণ । এই জগতের সমস্ত ঐশ্বর্যের চেয়েও সদাপ্রফুল্ল ও হাসি হাসি ভাব থাকা খুবই মূল্যবান । কারণ এতে চারদিকে আনন্দের ভাব সঞ্চারিত হয় । প্রাণশক্তি সতেজ থাকে । কর্মে উৎসাহ দেখা যায় । তাই হাসার ব্যাপারে কখনো কৃপণতা না করাই ভালো । কারণ এতে কল্যাণ হবে । আর লাভজনকও বটে । আবার হাসি খরচ করতে অর্থ লাগে না । অর্থহীন হাসির মধ্যেও একটা মূল্য আছে । সেখানে নিজেকে চাপশুন্য বলে মনে হয় ।কাজেই আমাদের হাসতে ইচ্ছা করুক আর না করুক, হাসতে হবে । মুখে যেন সদা আনন্দের চিহ্ন হিসাবে হাসি লেগে থাকে । কারণ হাসির আছে এক আশ্চর্য শক্তি যা টনিকের মতো কাজ করে । জনৈক এক দার্শনিক মন্তব্য করেছিলেন : “Laughter is the medicines of life”. আইরিশ একটি প্রবাদবাক্যে আছে যে, “এক সুন্দর প্রাণবন্ত হাসি এবং সুদীর্ঘ নিশ্চিন্ত ঘুম হল মানুষের যাবতীয় রোগ নিবারণের মূল টনিক স্বরূপ ।” আর এ-কারণেই প্রখ্যাত আমেরিকান দার্শনিক এমারসন মন্তব্য করেছেন যে, “যে বেশি হাসতে  পারে ও হাসাতে পারে – সে বুদ্ধিমান লোকেদের কাছে সম্মান পায় এবং বাচ্চাদের ভালোবাসা অর্জন করতে পারে ।” তাই প্রাণ খুলে হাসতে থাকুন । কারণ জ্ঞানী ব্যক্তিরা বলে থাকেন, ”যে হাসাতে পারে না, তাকে বিশ্বাস করা যায় না ।আগেই বলেছি যে, হাসি হল মানুষের জীবনের অমূল্য সম্পদ । এই সম্পদ মুক্তোর মতো চকচক করে যে কোন ব্যক্তির মুখে, ঠোঁটে এবং চোখের ভাষায় । আর হাসি মানেই আনন্দ, হাসি মানেই প্রাণ-প্রাচুর্য, হাসি মানেই উচ্ছলতা, হাসি মানেই জীবনের প্রতি ভালোবাসা । তাই সর্বদা একটু হেসে হেসে সকলের সঙ্গে কথা বলুন । যদি জীবনের পথে চলতে চলতে নানা দুঃখ-যন্ত্রণা পেয়ে, নির্মম আঘাতে, অসহযোগিতার ফলে, প্রতিকূল অবস্থায় কিংবা মানসিক বিপর্যয়ে আপনার হাসি চলে যায় – তবুও চেষ্টা করে তাকে ফিরিয়ে আনুন আপনার মুখে । কারণ জীবনযুদ্ধে জয়লাভ করতে হলে হাসিকে সঙ্গে রাখা অপরিহার্য ব্যাপার । হাসি তাই  বেঁচে থাকার, বাঁচিয়ে রাখার এক অব্যর্থ ঔষধ ।” স্বামী বেদানন্দ (রামকৃষ্ণ বিবেকানন্দ মিশন, বারাকপুর) ।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button