কলকাতা

শুভেন্দু ইস্যুতে তৃণমূল শিবির দ্বিধাবিভক্ত।

নিউস বেঙ্গল 365, নিউসডেস্ক: শুভেন্দু অধিকারীর মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দেয়ার পর শীতকালীন আমেজে বঙ্গ রাজনীতি গরমাগরম। বাঙালির ড্রইংরুম থেকে চায়ের ঠেক, লক্ষ টাকার প্রশ্ন ঘুরছে, শুভেন্দু কি করবেন? আজ মহিষাদল থেকে কি ঘোষণা করবেন প্রাক্তন মন্ত্রী ? সেদিকে তাকিয়ে সবাই। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে নন্দীগ্রামের বিধায়কের তৃণমূলে থাকার কোনো রাস্তাই আর খোলা রাখেননি খোদ তৃণমূল নেত্রী। সাংসদ কল্যাণ বন্দোপাধ্যায় ক্রমাগত লাগামহীন ভাষা প্রয়োগ করে চলেছেন প্রাক্তন পরিবহণমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এবং তার জন্য যথাযত পুরস্কার পেয়েছেন দলনেত্রীর থেকে। শুভেন্দুকে বার্তা দিতে বা দলত্যাগে বাধ্য করতে শ্রীরামপুরের সাংসদকে হেলিকপ্টারে নিজের সঙ্গে উড়িয়ে নিয়ে গিয়েছেন বাঁকুড়ার জনসভায়। শুভেন্দুর ছেড়ে যাওয়া এইচআরবিসির চেয়ারম্যানের পদ দিয়েছেন সেই কল্যাণ বন্দোপাধ্যায়কেই। শোনা যায়, সদ্য প্রাক্তন মন্ত্রী কোনো মতেই দলে অভিষেক বন্দোপাধ্যায় এবং প্রশান্ত কিশোরের কর্তৃত্ব মানতে না পারার জন্য দলত্যাগের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন বা নিচ্ছেন, অথচ তাঁর মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগের পর কালীঘাটে তড়িঘড়ি ডাকা বৈঠকে অভিষেকের উপস্থিতি যথেষ্ট ইঙ্গিতপূর্ণ। আগামী 9 তারিখ দলনেত্রী যাচ্ছেন শুভেন্দুর গড় পূর্ব মেদিনীপুরে জনসভা করতে। তাই, বিভিন্ন পারিপার্শিক ঘটনা উপলব্ধি করে একথা সহজেই অনুমেয় যে, তৃণমূল সুপ্রিমো দল থেকে ছেঁটে ফেলতে চাইছেন কাঁথির অধিকারী বাড়ির মেজো ছেলেকে। কিন্তু ‘জননেতা’ বলে খ্যাত নন্দীগ্রামের বিধায়ককে নিয়ে স্পষ্টতই দ্বিধাবিভক্ত তৃণমূল শিবির। দলের নিচুতলার কর্মী থেকে মন্ত্রিসভার বেশ কিছু সদস্য মনেপ্রাণে চাইছেন শুভেন্দু অধিকারী যেন দল ছেড়ে না যান। সাংসদ সৌগত রায় এখনো চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন মীমাংসাসূত্র খুঁজে বার করতে। উত্তরপাড়ার বিধায়ক প্রবীর ঘোষাল জানিয়ে দিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী দল ছাড়লে তৃণমূলের ক্ষতি হবে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উত্তরবঙ্গের এক বিধায়ক জানালেন ‘দলনেত্রীর পর সবচেয়ে জনপ্রিয় মুখ শুভেন্দু অধিকারীর এই অবস্থা হলে আমাদের চিন্তা ভাবনা করতে হবে’। দক্ষিণবঙ্গের এক বিধায়িকা জানালেন, ‘শুভেন্দু অধিকারীর মতো জনগণের নেতার অপমান তৃণমূলের কর্মীরা মেনে নেবেন না’। তৃণমূলের এক নেতা বললেন, ‘মুকুল রায়ের দল ছেড়ে চলে যাওয়ার আগে দলনেত্রী চুপ ছিলেন আর এখনো চুপ। কাদের কথায় তিনি দল চালাচ্ছেন কে জানে। শুভেন্দু অধিকারী চলে গেলে দল তাসের ঘরের মতো ভেঙে পারবে’। 

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 + nineteen =

Back to top button