কলকাতা

“গরুপাচারে বড় অংশ আছে ভাইপোর” : অধীর চৌধুরী।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক : বিস্ফোরক অধীর চৌধুরী। এবার গরুপাচারে সরাসরি অভিষেক বন্দোপাধ্যায় জড়িত থাকার অভিযোগ করলেন প্র্দেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। ইতিমধ্যেই গরুপাচার নিয়ে সক্রিয় সিবিআই। বিএস এফের ৩৫ নম্বর ব্যাটেলিয়ানের কমান্ডান্ট সতীশ কুমারকে গরুপাচার কাণ্ডে গ্রেফতার করার পর তাঁকে ১৪ দিনের সিবিআই হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আসানসোলের সিবিআইয়ের বিশেষ আদালত। এমনকি এই ঘটনায় রাজ্যের শাসক দলের একাধিক বড় বড় নেতার জড়িত থাকার অভিযোগ তুলছে বিরোধীরা । আর তারই মধ্যে গরুপাচার কান্ডে এবার সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীর পরিবারের দিকে আঙুল তুলেলেন কংগ্রেস সাংসদ অধীররঞ্জন চৌধুরী। তাঁর বক্তব্য , “দিদির ভাইপোর বড় অংশ রয়েছে এর মধ্যে।” লোকসভার কংগ্রেস দলনেতার আরও  ব্যাখা, ” বর্ডার হচ্ছে বিএসএফের অধীন, কিন্তু গরু এখান থেকে পাচার হচ্ছে। রাজ্যের মধ্যে দিয়ে যখন বর্ডার পর্যন্ত গরু যাচ্ছে, তখন সেই বিষয়টা নজর রাখার দায়িত্ব রাজ্য পুলিশের। অথচ তাদের নজর এড়িয়ে গরু পাচারের জন্য বর্ডারে চলে যাচ্ছে! সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে, গরু পাচার হচ্ছে রাজ্য পুলিশ, রাজ্যের বড় বড় নেতা এবং বিএসএফ-এর যৌথ উদ্যোগে।”  তার মতে, এই গরু পাচারে  দিল্লির সঙ্গে – কলকাতাও জড়িত। ইতিমধ্যে একাধিক মাধ্যমে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে,  রাজ্যের রাস্তা ব্যবহার করেই  পাচারের গরু ভিনরাজ্য থেকে ঢুকে প্রবেশ করছে। তাহলে  রাজ্য পুলিশ কীভাবে দায় এড়িয়ে যেতে পারে? আর তা মনে করিয়ে দিয়ে অধীর চৌধুরীর বক্তব্য , “তদন্ত সঠিকভাবে হলে রাজ্যের  অনেক বড় বড় নেতা এবং মন্ত্রীদের নাম সামনে চলে আসবে। এমনকি, ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বড় অংশ রয়েছে এর মধ্যে।” তবে এখানেই শেষ নয়, রাজ্য প্রশাসনের একাধিক বড় বড় মাথা ও শাসক দলের  একটা বড় অংশকে “হাতে” রেখেই  এই গরু পাচারের কাজ চ্লছে বলে দাবী করেন তিনি। প্রদেস কংগ্রেস সভাপতির বক্তব্য , “কয়লা পাচার, গরু পাচার, বালি পাচারের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিবার জড়িত। সমস্ত রকম দুর্নীতির সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর পরিবার জড়িয়ে রয়েছে, সঠিক তদন্ত হলে এই সত্য খুব তাড়াতাড়ি সামনে আসবে।”  

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × 2 =

Back to top button