কলকাতা

নন্দীগ্রামে তৃণমূলের মঞ্চে ” নারায়ণ কেলেঙ্কারি”।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক: নন্দীগ্রামে তৃণমূলের পাল্টা সভায় এবার ” নারায়ন কেলেঙ্কারি”! অবাক হচ্ছেন? আর তাতে নাম জড়াল রাজ্যের কারিগিরী শিক্ষামন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসুর। ইতিমধ্যেই যা নিযে সরব তৃণমূলের মুখপত্র কুনাল ঘোষ। সোমবার নন্দীগ্রামে সকালে ভূমি উচ্ছেদ প্রতিরোধ কমিটির নামে তেখালিতে জনসভা করেন শুভেন্দু অধিকারী। চৌরঙ্গির হাজরাকাটায় তারই পাল্টা সভা ডাকে তৃণমূল। পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, রাজ্যসভার সাংসদ দোলা সেন ছাড়াও এই সভায় বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কারিগরী শিক্ষা মন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসু। অভিযোগ, নন্দীগ্রাম আন্দোলনের অন্যতম মুখ প্রাক্তন মাওবাদী মধুসূদন মণ্ডলে ওরফে নারায়ণ মণ্ডলের পরিচয় করাতে গিয়ে ভুয়ো একজন ব্যক্তিকে মঞ্চে তুলে পরিচয় করিয়েছেন। যা নিয়ে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে বিতর্ক। হলদিয়ায় দুর্গাচকের বাসিন্দা এই আসল মধুসূদন মন্ডল সম্প্রতি প্রেসিডেন্সি জেল থেকে জামিনে ছাড়া পেয়েছেন। সূত্রের খবর, সোমবার মঞ্চে বক্তৃতা রাখতে উঠেন পূর্ণেন্দু বসু। সেখানেই নিজের বক্তব্যের মধ্যে বলেন,” আমি নারায়ণকে নিয়ে এসেছি। কই ও কোথায়? নন্দীগ্রাম বিষয়ক বইতে এই নারায়ণের নাম আছে। ও এখানে মধুদা বলে পরিচিত। সব আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত ছিল।” এমনকী পূর্ণেন্দু বসুর ঘোষনার পর ফিরহাদ হাকিম, দোলা সেন, অখিল গিরি, ফিরোজা বিবিদের  সামনেই  এক ব্যক্তি সটান উঠে দাড়িয়ে নিজেকে মধুসূদন ওরফে নারায়ন পরিচয়ে হাত নেড়ে নমস্কারও করেন। এমনকী ওই পরিচয়েই মঞ্চেও বসেন। অভিযোগ, মন্ত্রী যাকে সঙ্গে করে নিয়ে এসে নারায়ণ বলে পরিচয় করিয়ে দেন, তিনি আদৌ নন্দীগ্রাম আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত সেই মধুসূদন মন্ডল বা নারায়ণ নন! গোটা বিষয়টি সামনে আসার পর কার্যত আকাশ থেকে পড়লেন একদা মাওবাদী, বর্তমানে জামিনে মুক্ত “আসল” মধুসূদন মন্ডল। তার বক্তব্য,” আজব কথা! আমি সোমবার সারাদিন দুর্গাচক এলাকায় গান গেয়ে এই নন্দীগ্রাম দিবস পালন করেছি। হাজরাকাটায় তৃণমূলের মঞ্চেই যাইনি, আর অন্য একটা লোককে আমি বলে চালিয়ে দিল!” চরম  অর্থ কষ্টে থাকা এই মধুসূদন মণ্ডলের ছেলেকে সম্প্রতি চাকরি দিয়েছেন পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। গোটা বিষয় নিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়ে মধুসূদন মন্ডলের বক্তব্য,” খামোকা অন্য লোককে আমি সাজিয়ে এইসব করার মানে কী? এইসব করতেই বা গেলেন কেন? আর আমি তৃণমূলের মঞ্চে যাবোই বা কেন?” প্রেসিডেন্সি জেলে বন্দী থাকার সময় মাওবাদী অভিযোগে সাজাপ্রাপ্ত এই মধুসূদন মন্ডলকে খুব কাছ থেকে দেখেছেন তৃণমূল মুখপাত্র কুনাল ঘোষ। দলের মন্ত্রীর এহেন কীর্তিতে অবাক তিনিও। তার বক্তব্য,” জানিনা কেন উনি ওই মঞ্চে ভুয়ো নারায়ণকে তুললেন? আমি ব্যাক্তিগতভাবে মধুদা কে খুব ভাল করে চিনি। শুধু এইটুকু বলব এখন এই ভুয়ো মধুদাকে দেখিয়ে মঞ্চে ভুলভাল রাজনীতির কোনও দরকার ছিল না। মধুদার যখন  খুব খারাপ অবস্থা তখন এই বক্তাদের দেখা যায়নি। তাহলে এখন এগুলো কেন? ”  এমনকী  নিজের ফেসবুকেও গোটা বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ জানিয়েছেন কুনাল ঘোষ।   আর এই ঘটনা সামনে আসার পর এখন প্রশ্ন কে এই নারায়ণ? যাকে সঙ্গে করে এনেছিলেন পূর্ণেন্দু বসু?

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

15 + seven =

Back to top button