কলকাতা

দলমত নির্বিশেষে আমলাতন্ত্রের মেরুদণ্ড ভেঙে দিয়েছেন আপনারা, রাজ্যকে কড়া ভর্ৎসনা হাই কোর্টের।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক : পুজো নিয়ে শুনানিতে রাজ্যকে তীব্র কটাক্ষ উচ্চ আদালতের। পুজো নিয়ে করা জনস্বার্থ মামলায় রাজ্যকে এভাবেই তুলোধনা করলেন বিচারপতি সঞ্জীব বন্দোপাধ্যায়। করোনা আবহে দুর্গা পুজো বন্ধ করা নিয়ে দায়ের করা জনস্বার্থ মামলার শুনানি ছিল আজ। সেই মামলাতেই এদিন বিচারপতি সঞ্জিব বন্দোপাধ্যাযের মন্তব্য,” দলমত নির্বিশেষে আমলাতন্ত্রের মেরুদণ্ড ভেঙে দিয়েছেন আপনারা। মুখ্যমন্ত্রী টাকা দেওয়ার সময় যা বলেছেন। পরে বিজ্ঞপ্তিতে তা মিলছে না। মনে রাখবেন আমলাতন্ত্র মজবুত হলে এই অব্স্থা হয় না।” এর আগেও একাধিক মামলার শুনানিতে রাজ্যকে কার্যত তুলোধনা করে কলকাতা হাইকোর্ট। এদিন ও সেই একই রাস্তায় হাটলেন বিচারপতি বন্দোপাধ্যায়। তার পর্যবেক্ষণ, ” আমলারা বিচার বুদ্ধিতে আপনাদের থেকে অনেক এগিয়ে।” এদিন বিচারপতি বন্দোপাধ্যাযের আরও মন্তব্য,” মহামারীর সময়ে মাস্ক না পরা অপরাধ। আপনার ভেবেছেন পুজোয় সময় কেউ মাস্ক পড়ে বেরোবে না। আর আপনারা তাদের মাস্ক পড়াবেন।” পাশাপাশি এদিন এই মামলার রায়েতে আর্থিক সংক্রান্ত বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশও দিয়েছেন বিচারপতি সঞ্জিব বন্দোপাধ্যায়। তার নির্দেশ,” সরকারি অর্থ আলংকারিক অনুষ্ঠানে অনুদানের অর্থ খরচ করা যাবে না। কর্মকর্তাদের বিনোদনের জন্য সরকারি অর্থ খরচ করা যাবে না। বিলের হিসাব রাজ্য সরকারকে দেবে কমিটি গুলি। আর এই নির্দেশ পৌছে দেবে পুলিশ। ডিজিকে তা হলফনামা দিয়ে জানাতে হবে।” আদালতের নির্দেশ, ৭৫% খরচ করতে হবে মাস্ক-স্যানেটাইজার ও ২৫% পুলিশি জন সংযোগে। গোটা বিষয় নিয়ে রাজ্যকে কাঠগড়ায় দাড় করিয়ে সিপিএমের রাজ্যসভা সাংসদ ও আইনজীবী বিকাশ ভট্টাচার্যের বক্তব্য,”পুজোর কোনও কাজে সরকারের অনুদান খরচ নয়, কোর্ট এটা বলেছে। তার মানে রাজ্যের ভাওতাবাজী ধরা পড়ে গিয়েছে ” অপরদিকে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন,” সরকারি অর্থকে নিয়ে  যে রাজনৈতিক স্বার্থে যে ধর্মকে ব্যবহার করা হচ্ছে তা প্রমান হয়ে গেল।” অপরদিকে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় বলেন,” আদালত হয়ত ঠিক মনে করেছে।  সরকার যদি ভুল মনে করে ডিভিশন বেঞ্চে যাবে। নয়ত নির্দেশ পালন করবে।”

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button