কলকাতা

দুর্গাপুজো ও করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে বেশ কিছু বড় সিদ্ধান্তের ঘোষনা নবান্ন থেকে।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক : অভিযোগ ছিল বহুদিনের। বলা যেতে পারে সমাধান হল আজ। বেসরকারি ল্যাবরেটরি বা প্যাথলজিক্যাল সেন্টারে ‌করোনা পরীক্ষার খরচ কমল। বর্তমানে এর খরচ পড়ে ২২৫০ টাকা। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী করোনা পরীক্ষা রেট কমিয়ে আনা হল ১৫০০ টাকায়। এদিন  দুর্গাপুজো ও করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে বেশ কিছু বড় সিদ্ধান্তের ঘোষনা করা হয় নবান্ন থেকে।  মন্ত্রিসভার সঙ্গে বৈঠকের পর  তা  জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যার মধ্যে অন্যতম কোভিড পরীক্ষার খরচ কমানো। তা ছাড়াও এদিন রাজ্যের পক্ষ থেকে বেসরকারি অ্যাম্বুল্যান্সের ভাড়া কমানোর আবেদন জানানো হয়। এদিন বৈঠকের পর রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “পশ্চিমবঙ্গ সরকারের স্বাস্থ্য দফতর এবং কলকাতা পুরসভা বিনামূল্যে নিঃশর্তে রাজ্যের সকল কোভিড রোগীকে অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা দেয়। যে কোনও রোগী স্বাস্থ্যভবন বা কলকাতা পুরসভায় ফোন করে যে কোনও হাসপাতালে বা নার্সিংহোমে কোভিড চিকিৎসার জন্য আসতে–যেতে নিখরচায় সরকারি অ্যাম্বুল্যান্স পান বা পেতে পারেন। তবুও কিছু মানুষ বেসরকারি হাসপাতাল বা নার্সিংহোম বা অন্য সংস্থার অ্যাম্বুল্যান্স ভাড়া করেন। সে ক্ষেত্রেও অ্যাম্বুল্যান্সের ভাড়া কমানো দরকার বলে মনে করে রাজ্য সরকার।” তার আরও বক্তব্য,” মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে রাজ্য সরকার সংশ্লিষ্ট রেগুলেটরি কমিশনের কাছে অনুরোধ করছে, অবিলম্বে পুজোর আগেই এই সব বেসরকারি অ্যাম্বুল্যান্সের ভাড়া একটা ন্যায্য সহনশীল স্তরে নামিয়ে আনা হোক।’‌  পুজোর আনন্দে মানুষ ভুলবে স্বাস্থ্যবিধি। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাও সম্ভব হবে না। যা নিয়ে কিছুটা চিন্তিত রাজ্য সরকারও। দুর্গাপুজো থেকেই করোনা মোকাবিলায় আরও শক্ত হাতে নামছে রাজ্য। বিভিন্ন হাসপাতালে বাড়ানো হচ্ছে কোভিড শয্যা। একইসঙ্গে রাজ্যের বিভিন্ন কোভিড হাসপাতালে নিয়োগ করা হচ্ছে প্রায় আড়াই হাজার নার্স। এদিন সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “পুজোর আগে কোভিড পরিষেবার উন্নতিতে এবং সর্বত্র রোগীদের জন্য বিনামূল্যে বেডের সংখ্যা বাড়াতে রাজ্য সরকার কিছু সুনির্দিষ্ট ব্যবস্থা নিচ্ছে। এএসআই বালিটিকুরিতে নতুন ৪৮টি শয্যা রবিবার থেকে চালু হয়ে গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে সোমবার থেকে এমআর বাঙুর হাসপাতালে ৫৬টি নতুন বেড চালু হবে। আরও নতুন ৪৯৬টি বেড চালু হবে আগামী ২–৩ সপ্তাহের মধ্যেই। পুজোর আগেই রাজ্য জুড়ে এভাবে প্রায় ৬০০টি বিনামূল্যে সরকারি বেডের সংখ্যা বাড়ছে। এগুলি সবই আইসিইউ এইউডিজি বেড। এমন বেড রাজ্যে এই মুহূর্তে রয়েছে ১২৪৭টি। এমন আরও ৬০০টি অর্থাৎ প্রায় ৫০ শতাংশ বেড বাড়ানো হচ্ছে।’‌ পাশাপাশি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোভিড হাসপাতালগুলিতে আরও নার্স নিযুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে রাজ্যের বিভিন্ন কোভিড হাসপাতালে মোট ২৪৭৫ জন নার্স নিযোগ করা হবে। চিকিৎসকদের জন্যও স্বাস্থ্য দফতরের কিছু নিয়মনীতি শিথিল করল রাজ্য। যে সমস্ত চিকিৎসক একা চেম্বার চালান বা পাড়ায় পাড়ায় যে সব ডাক্তার রোগী দেখেন তাঁদের বিপুল অবদান রয়েছে রাজ্যের স্বাস্থ্যক্ষেত্রে। তাঁদের কথা ভেবে রাজ্য সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, ক্লিনিক্যাল এসট্যাব্লিশমেন্ট অ্যাক্টের খুঁটিনাটি নিয়ন্ত্রণ থেকে তাঁদের ছাড় দিচ্ছে রাজ্য।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button