কলকাতা

মনীশ শুক্লা খুনে তৃংমূল বিধায়ককে মুল চক্রী বলে বিস্ফোরক অভিযোগ অর্জুন সিংহের।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক :   বিজেপি নেতা মণীশ শুক্লা হত্যাকাণ্ড নিয়ে এবার বিস্ফরোক বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সরাসরি তৃণমূল বিধায়ক নির্মল ঘোষের নাম জড়িয়ে দিলেন তিনি। এমনকি উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল চেয়ারম্যান ও পানিহাটির তৃণমূল বিধায়ককেই ‘মূল চক্রী’ বলে অভিযুক্ত  করলেন বারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। নাম করলেন বারাকপুরের বিধায়ক শীলভদ্র দত্তরও।  রীতিমত  সাংবাদিক বৈঠক করে অর্জুনের  অভিযোগ, এঁরা সকলেই মণীশ শুক্লাকে খুনের কথা জানতেন। তবে   বিজেপি সাংসদের এই অভিযোগকে খুব একটা গুরুত্ব দিতে নারাজ বিধানসভার মূখ্য সচেতক নির্মল ঘোষ । পাল্টা অর্জুনকে পালটা ‘বাহুবলি’ বলেও  আক্রমণ করেন তিনি।  শনিবার সাংবাদিক বৈঠকে তৃণমূলের  বিরুদ্ধে  চড়িয়ে বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং বলেন, ”ঘটনায় মূল চক্রী তৃণমূল বিধায়ক নির্মল ঘোষ। আর শীলভদ্র দত্তও  পুরোটা  জানতেন। তাই ওইদিন ভয়েতে উনার মোবাইল সুইচড অফ  ছিল।”  যদিও বারাকপুরের বিজেপি সাংসদের যাবতীয় অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে পাল্টা নির্মল ঘোষের সাফ প্রতিক্রিয়া, ”ঘটনার তদন্ত চলছে। আর বাহুবলির মন্তব্য নিয়ে কোনও কথা বলব না।” এখানেই শেষ নয়, এই ঘটনার তদন্তের দাযিত্বে থাকা সিআইডি বিজেপি সাংসদকে “ফাসাতে চাইছে” বলেও আশঙ্কা করছেন অর্জুন সিং। প্রসঙ্গত,গত রবিবার ভর সন্ধেবেলা টিটাগড় থানার কাছেই  বিজেপি দলীয় কার্যালয়ের সামনে দুষ্কৃতীদের গুলিতে খুন হন  অর্জুন সিং ঘনিষ্ঠ  মণীশ শুক্লা।  তদন্তভার যায় সিআইডি’র হাতে। তদন্তে নেমে  গ্রেপ্তার করা হয় মহম্মদ খুররম খান ও গুলাব শেখ নামে দুই ব্যক্তিকে। তবে পরে এই ঘটনায় শাসক দলের যোগ পাওয়া যায়।  মণীশ হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে গ্রেফতার করা হয়  সুবোধ যাদব বারাকপুর পুরসভার চেয়ারম্যান উত্তম দাসের ঘনিষ্ঠ এক যুবককে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button