কলকাতা

বঙ্গ রাজনীতিতে আজ একটি অতি প্রাসঙ্গিক নাম ‘সৌমিত্র খান’।

নিউস বেঙ্গল 365, কলকাতা: বাঁকুড়া দুর্লভপুরের ‘বাপ্পা’ লালমাটির মেঠো পথ ছাড়িয়ে অনেক আগেই পৌঁছে গিয়েছিলেন দিল্লির দরবারে। কিন্তু গতকালের নবান্ন অভিযানের সফল নেতৃত্ব দিয়ে বিষ্ণুপুরের সাংসদ বঙ্গ রাজনীতিতে নিজেকে প্রাসঙ্গিক করে তুললেন।তিনি প্রমান করে দিলেন, দিল্লির নেতৃত্ব রাজ্য নেতৃত্বকে উপেক্ষা করে তাঁর হাতে রাজ্য যুব মোর্চার বাটন তুলে দিয়ে কোনো ভুল করেন নি। সদাহাস্য বাপ্পা অর্থাৎ সৌমিত্র খান সোজা কথা সোজা ভাবে বলতে ভালোবাসেন। অসম্ভব পরিশ্রম করতে ভালবাসেন। গত একমাস ধরে রাজ্য চষে বেড়িয়েছেন শুধু মাত্র নবান্ন অভিযান সফল করার উদ্দেশ্যে। কলেজ জীবন থেকে রাজনীতি করা সৌমিত্র কিন্তু রাজনীতিটা ভালোই বোঝেন এবং মন দিয়েই করেন। তাই তো গত লোকসভা নির্বাচনে শাসক দলের অনেক চেষ্টা এবং নিজের নির্বাচনী এলাকায় ঢুকতে না পেরেও শুধুমাত্র জনপ্রিয়তার জোরে বিষ্ণুপুর থেকে জিতে দ্বিতীয়বারের জন্য লোকসভায় যান। শোনা যায়, মোদী মন্ত্রিসভায় তাঁর নাম থাকলেও কোনো এক অজানা কারণে তাঁর নাম বাদ গিয়েছিলো। তবুও দমবার পাত্র নন সৌমিত্র । সুযোগের  অপেক্ষায়  ছিলেন এবং সুযোগ আসামাত্র তিনি ময়দানে নেমে পড়েন। সিইএসসির অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিলের বিরুদ্ধে আন্দোলনের মাধ্যমে যুবমোর্চার সভাপতি হিসাবে প্রথমেই সফল হয়েছিলেন তিনি। আর গতকাল যেভাবে তিনি রাজ্য নেতৃত্বের দুই গোষ্ঠীকে একজায়গায় নিয়ে নবান্ন অভিযানের নেতৃত্ব দিলেন, তাতে একটা কথা সহজেই বলা যেতে পারে সৌমিত্র খান এই মুহুর্ত্বে বঙ্গ বিজেপির একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা। শুধু তাই নয়, সৌমিত্রর ‘মস্তিস্কপ্রসূত’ নবান্ন অভিযান বন্ধ করতে গত বুধবার নবান্ন বন্ধের নির্দেশ এবং বৃহস্পতিবার মিছিলের উপর পুলিশি আচরণ বিজেপি কর্মীদের মুখের হাসি চওড়া করে দিলো। 2021সে বিজেপি আসবে নাকি টিএমসি ক্ষমতা ধরে রাখবে, সেকথা সময় বলবে। কিন্তু একথা অনস্বীকার্য, সৌমিত্র খানের নেতৃত্বে গতকালের নবান্ন অভিযান আগামী বিধানসভা নির্বাচনে অনেকটাই এগিয়ে রাখলো বিজেপিকে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button