কলকাতা

করোনার মহামারীর কারনে এবার ছোট করে সব জায়গায় পুজো হচ্ছে। তবে বেশ কিছু জায়গায় থিম পুজো হচ্ছে।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক:- করোনা মহামারীর কারনে এবার ছোট করে সব জায়গায় পুজো হচ্ছে। তবে বেশ কিছু জায়গায় থিম পুজো হচ্ছে। তাহলে দেখে নেওয়া যাক এই বছর কোথায় কোথায় কী থিম?
১। ৯৫ বর্ষে পা দেওয়া টালাপার্ক প্রত্যয় এ এই বছর পুজোর থিম হচ্ছে লোকহিত। অর্থাৎ করোনার আবহে মানুষের পাশে দাঁড়ানোই তাদের সংকল্প।
২। কুমোরটুলি সর্বজনীনের প্রথম পুজো হয়েছিল ১৯৩১ সালে। পরাধীন ভারতকে মুক্ত করতে দৈবিক শক্তির আরাধনা করা হয়েছিল সে বছর। এই বছরও ভাইরাসের হাত থেকে মুক্তি পেতে তারা তেমন ভাবেই পুজো করবে যেমন ভাবে প্রথমবার সেখানে পুজো অনুষ্ঠিত হয়েছিল।
৩। বেলগাছিয়া সাধারণ দুর্গোৎসব ৭৩ তম বর্ষে পা দিচ্ছে এবার। এই বছর সেখানে পুজোর থিম হলো “আবদ্ধ” অর্থাৎ করোনার কারণে লকডাউন এর কারণে মানুষের অর্থনৈতিক পার্থক্যের কারণে নিজেদের বাড়ির দেয়াল গুলি বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে চিএ ফুটে উঠেছিল। এই অবস্থাকেই রূপায়িত করবেন শিল্পী সোমনাথ দলুই।লকডাউনের জন্য এই বছর একজন অচেনা বাঁশিওয়ালা কে ঘুরতে দেখা যায়। তিনি তার অর্থনৈতিক পরিস্থিতির কারণে ভবঘুরের মতো বাঁশি বাজিয়ে কিছু রোজগারের আশায় ঘুরছিলেন। বেলগাছিয়া দুর্গোৎসব কমিটির লোক ওই বাঁশিওয়ালাকে সাহায্য করার জন্য হাত বাড়িয়েছেন। আর সাথে সাথে এই বছর তারই জীবনের সুখ-দুঃখের উপর রচিত সুমধুর বাঁশির সুর কে তাদের প্যান্ডেলের আবহসংগীত রূপে নির্বাচিত করবেন।
৪। শতবর্ষে পা দিতে চলা টালা বারোয়ারির পুজোর এই বছরের থিম ‘শ্রদ্ধার্ঘ্য’ ভারতীয় সেনাদের মধ্যে যারা বলিদান দিয়েছেন তাদের গল্পই ফুটে উঠবে এই পুজো মণ্ডপে।৫। ৮৪ তম বর্ষে পা দিতে চলা জগৎ মুখার্জি পার্ক এর থিম হলো ‘ফিরে দেখা’। প্রথম থিম শিল্পী স্যার অশোক গুপ্ত মহাশয়ের হাত ধরে জগৎ মুখার্জি পার্কে ১৬ বছর নানারকম অনবদ্য মাতৃ প্রতিমা তৈরি হয়েছিল। সেই অতীত স্মৃতি চারণ ই করবে জগৎ মুখার্জি পার্ক। স্যার অশোক গুপ্ত এর পুরনো দিনের সেই সকল স্মৃতিকেই তারা তাদের থিম এর মধ্যে ফুটিয়ে তুলবেন।
৬। ৮১ তম বর্ষে পা দিতে চলা আহিরীটোলা সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটির থিম এবার পশ্চিমের কোন এক রাজ্যের সূর্য মন্দির। এই সূর্য মন্দিরের আদলে এই বছরের মন্ডপ গড়ে তোলা হবে সেখানে।
৭। চোরাবাগান সর্বজনীন দুর্গোৎসবের থিম হলো-” আগামী”। কিন্তু এই থিম সম্পর্কে পুজো কমিটির সদস্যরা এখনই মুখ খুলতে নারাজ। শিল্পী বিমল সামন্ত এই ভাবনাকে ফুটিয়ে তুলছেন। আগামীর ভাবনার মধ্যে আমরা ঠিক কী দেখতে পাবো তা দুর্গা পুজোর মন্ডপে গিয়েই দেখতে হবে, ততদিন আমাদের অপেক্ষা করতেই হচ্ছে।
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button