কলকাতা

রাজ্যে অবহেলিত অনুপমের যোগ্যতার দাম দিলো দিল্লি।

নিউস বেঙ্গল 365, কলকাতা: 2019 এ লোকসভা নির্বাচনের পর ড: অনুপম হাজরা কিছুদিন সক্রিয় থাকলেও আস্তে আস্তে চলে গিয়েছিলেন অন্তরালে। শিক্ষাজগতের উজ্জ্বল নক্ষত্র পাঁচ বছর সাংসদ থাকার পরও ধরতে পারেননি রাজনীতির প্যাচগোছ। বুঝতে পারেননি কোন গোষ্ঠীর হাত ধরে চলতে হবে আর কোন গোষ্ঠীকে এড়িয়ে চলতে হবে। ফলে, যা হওয়ার তাই হয়েছে অর্থাৎ রাজ্য বিজেপিতে ক্ষমতাশীল গোষ্ঠীর কাছে আস্তে আস্তে ব্রাত্য হয়ে গেলেন তিনি। রাজ্যের বিভিন্ন কমিটি গঠিত হলেও কোথাও ছিল না তাঁর নাম। কোনো পদ তো দূরের কথা, কোনো কর্মসমিতির সদস্য হিসাবেও তাঁর নাম বিবেচিত হয়নি। উল্টে শোনা যায়, রাজ্য যুব মোর্চার সহ সভাপতি হিসাবে যখন সৌমিত্র খান তাঁর নাম বিবেচনা করেন তখন নাকি বিজেপি রাজ্য দপ্তর থেকে প্রবল ভাবে আপত্তি করা হয়। অপমানিত অবহেলিত ‘সেন্টিমেন্টাল অনুপম’ নিজেকেও কিছুটা গুটিয়ে নিলেন। তাঁর ঘনিষ্ট মহল থেকে জানা গেছে, আত্মসন্মানি অনুপম কখনোই চাননি কোনো কম্প্রোমাইস করতে। একটা সময় ভেবেছিলেন রাজনীতি ছেড়ে দেবেন। ফিরে যাবেন আবার পড়াশোনার জগতে। কিন্তু মোদীজির প্রতি অসম্ভব শ্রদ্ধাশীল অনুপমের অগাধ আস্থা ছিল অমিত শাহ এবং জগৎ প্রকাশ নাড্ডার প্রতি। মনকে সান্তনা দিতেন, দিন ফিরবেই। সত্যি আজ দিন ফিরলো অনুপমের। রাজ্য নেতৃত্বের অবজ্ঞা, উপেক্ষার জবাব যেন ড: অনুপম হাজরার হয়ে দিয়ে দিলো দিল্লি নেতৃত্ব। মুকুল রায়ের হাত ধরে বিজেপিতে যোগদান করে আজ তিনি সর্ব ভারতীয় নেতার স্বীকৃতি পেলেন একটি সর্ব ভারতীয় দলে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button