বিশ্ব

“আডিয়াস” মারাদোনা।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক : চলে গেলেন ফুটবলের রাজপুত্র। নিজের বাড়িতেই কার্ডিয়াক এরেস্টে প্রয়াত হলেন দিয়েগো আরমানদো  মারাদোনা ফ্রাঙ্কও ( ৬০)। ১৯৬০ সালের ৩০ অক্টোবর জন্মগ্রহণ করেন তিনি।  যদিও গোটা বিশ্বের কাছে তিনি পরিচিত ছিলেন দিয়েগো মারাদোনা নামেই। থেমে গেল ইতিহাস। তবে  থেকে গেল শতাব্দীর সেরা গোল, ‘হ্যান্ড অফ গড’, অসংখ্য মন মাতানো ড্রিবল। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মাত্র ৬০ বছরে প্রয়াত হলেন তিনি। মস্তিষ্কে রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ায় অস্ত্রোপচারের পর গত ১১ নভেম্বর হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছিলেন। মদ্যপান সংক্রান্ত সমস্যার কারণে সরাসরি তাঁকে বুয়েনস আয়ার্সের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। সেই সময় গত সপ্তাহদুয়েক ধরে সেখানেই ছিলেন তিনি। আর সেখানেই শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। আর্জেন্তিনা সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, বুধবার হৃদরোগে আক্রান্ত হন মারাদোনা। খবর দেওয়া হয় হাসপাতালে। কিছুক্ষণের মধ্যেই অ্যাম্বুলেন্স পৌঁছেও যায়। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ফুটবলের রাজপুত্র। সে কথা নিশ্চিত করেছেন তাঁর এজেন্ট মাতিয়াস মোরলা। ৮২ সালে দেশের হয়ে প্রথম  বিশ্বকাপ খেলেন তিনি। তবে ৮৬ -তেই আর্জেন্তিনার অধিনায়ক হিসাবে বিশ্বকাপ জয় করেন তিনি। দেশের হয়ে ৯১ টি ম্যাচে ৩৪ টি গোল করেন তিনি। তবে বিশ্বের ফুটবল আকাশে নক্ষত্র হয়ে ওঠেন তিনি। ৮৬ র বিশ্বকাপেই ৫ জনকে কাটিয়ে যেমন গোল দেন, পাশাপাশি এই ম্যাচেই ঘটেছিল “হ্যান্ড অফ গড”। ৮৬ ছাড়াও ৯০ ও ৯৪ সালেও বিশ্বকাপ খেলেছেন তিনি। ৮৬ সালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে  ৫ জনকে কাটিয়ে গোল দেওয়া যা ফিফার ভোটিং এ “শতাব্দীর সেরা গোল” হিসাবে মনোনীত হয়। ২০১০ সালে দেশের হযে কোচিং করে বিশ্বকাপে নামে মেসির  আর্জেন্টিনা। নাপোলি, বোকা জুনিয়ার্স, বার্সিলোনার হয়ে খেলেছেন। ২ বার শহরে পা রাখেন তিনি। কিংবদন্তীর প্রয়াণে গভীরভাবে শোকপ্রকাশ করেছেন জাতীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ক্লদিও তাপিয়া। তিনি বলেন, ‘দিয়োগো আর্মান্দো মারাদোনা… আপনি সর্বদা আমাদের হৃদয়ে থাকবেন।’ 

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one + sixteen =

Back to top button