স্বাস্থ্য

আমেরিকায় জল সরবরাহ ব্যবস্থায় প্রাণঘাতী জীবাণু ।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক:-  টেক্সাস অঙ্গরাজ্যে লেক জ্যাকসন শহরের জল সরবরাহ ব্যবস্থায় প্রাণঘাতী জীবাণু পাবার পর বাসিন্দাদের সতর্ক করে দেয়া হয়েছে তারা যেন কলের জল ব্যবহারে সতর্কতা অবলম্বন করে। এই জীবাণু মানুষের মগজ খেয়ে ফেলে বলে বলা হচ্ছে।জল পরীক্ষা করে সরবরাহ ব্যবস্থায় নায়গলেরিয়া ফাওলেরি নামে এই জীবাণুর অস্তিত্ব নিশ্চিত করা গেছে। ‌এই এক-কোষী অ্যামিবা মস্তিষ্কের প্রদাহ তৈরি করতে পারে যা সাধারণত প্রাণঘাতী।এই জীবাণু জলে নিজে থেকেই তৈরি হতে পারে এবং পৃথিবীর সব দেশেই এই নাইগলেরিয়া ফাওলেরি ব্যাকটেরিয়া জন্মাতে পারে।২০০৯ থেকে ২০১৮র মধ্যে এধরনের সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে ৩৪টি।লেক জ্যাকসনের কর্মকর্তারা বলেছেন তারা পুরো জল সরবরাহ ব্যবস্থাকে জীবাণুমুক্ত করার কাজ শুরু করে দিয়েছে, তাতে কত সময় লাগতে পারে তা তারা এখনও সঠিক করে বলতে পারছেন না।টেক্সাসের আটটি শহরের বাসিন্দাদের শুক্রবার রাতেই জানানো হয় তারা যেন টয়লেট ফ্লাশ করা ছাড়া অন্য কোন কাজে কলের জল ব্যবহার না করে।  কিন্তু জল খাবার আগে তা যেন ভাল করে ফুটিয়ে নেয়া হয়। বাসিন্দাদের অন্যান্য আরও কিছু বিষয়ে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে  শিশু, বয়স্ক মানুষ এবং যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা যে কোন কারণে দুর্বল তারা বিশেষ করে ঝুঁকির মুখে।কর্মকর্তারা বলছেন তারা জল সরবরাহ ব্যবস্থা থেকে পুরো জল বের করে পরীক্ষা করে দেখবেন জীবাণুর অস্তিত্ব কোথাও আছে কিনা এবং জল নিরাপদ হলে তবেই তা আবার পাইপের মাধ্যমে সরবরাহের ব্যবস্থা করবেন ।লেক জ্যাকসন শহরের ম্যানেজার মোডেস্টো মুন্ডো সাংবাদিকদের জানান, সিডিসি বলছে দূষিত জল খেলে মানুষের সংক্রমণ ঘটার ঝুঁকি থাকে না এবং এই জীবাণুতে একজন থেকে আরেকজনে সংক্রমণের সম্ভাবনা নেই।নায়গলেরিয়া ফাওলেরি সংক্রমণের উপসর্গগুলো হলো জ্বর, বমিভাব, এবং বমি। এছাড়াও ঘাড় নাড়াতে কষ্ট এবং মাথাব্যথাও হয় এবং আক্রান্ত ব্যক্তির বেশিরভাগই এক সপ্তাহের মধ্যে মারা যায়।এ বছরের গোড়ার দিকে আমেরিকার ফ্লোরিডায় এই জীবাণু সংক্রমণের খবর পাওয়া গিয়েছিল। সেসময় স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা সতর্ক থাকতে বলেছিলেন যাতে কল বা অন্য কোন উৎস থেকে জল নাকের মধ্যে দিয়ে শরীরে যেন প্রবেশ না করে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button