দেশ

দু’বছর আগের বন্ধ হয়ে যাওয়া মামলায় গ্রেফতার অর্ণব গোস্বামী। রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার অপব্যবহার, টুইট অমিত শাহের।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক: গণতন্ত্রের চতুর্থ স্থম্ভের উপর সরাসরি আঘাত করল মুম্বাই পুলিশ। টানতে টানতে পুলিশের গাড়িতে তুললো রিপাবলিক টিভির এডিটর-ইন-চিফ অর্ণব গোস্বামীকে।   দু’বছর আগের বন্ধ হয়ে যাওয়া মামলায় আজ প্রথমে আটক করা হয় তাকে। পরে গ্রেফতার হন তিনি।  ঋণ শোধ না করা এবং আত্মহত্যার প্ররোচনা দেওয়ার একটি ২ বছরের পুরনো মামলায়  সাংবাদিক অর্ণব গোস্বামীকে একপ্রকার জোড় করে থানায় নিয়ে গেল মহারাষ্ট্র সিআইডি। সূত্রের খবর, প্রথমে আটক করলেও রিপাবলিক টিভির এডিটর-ইন-চিফকে গ্রেপ্তার করেছে মুম্বই পুলিশ। কোঙ্কান রেঞ্জের ইনস্পেক্টর জেনারেল সঞ্জয় মোহিতে জানিয়েছেন যে, রায়গড় পুলিশ গ্রেফতার করেছে অর্ণব গোস্বামীকে। বুধবার সাতসকালে অর্ণবের বাড়িতে হানা দেয় মুম্বই পুলিশের একটি বড়সড় দল। সিআইডি এবং মুম্বই পুলিশের ১০-১২ জন আধিকারিক অর্ণবের বাড়িতে প্রবেশ করে। বাকি অন্তত ৪০-৪৫ জন পুলিশ আধিকারিককে দেখা যায় তাঁর বাড়ির বাইরে অপেক্ষা করতে। অর্ণবের অভিযোগ, কোন আগাম নোটিশ ছাড়াই তার বাড়িতে আসে তদন্তকারী দল।  রিপাবলিক টিভির সম্পাদক অর্ণব গোস্বামী বলেছেন, “পুলিশ আমাকে মারধর করেছে”।  কিছুক্ষণ পর দেখা যায় অর্ণবকে একপ্রকার টানতে টানতে থানায় নিয়ে গিয়েছে পুলিশ। যে মামলায় অর্ণবকে আটক করা হয়েছে সেটি বছর দুয়েকের পুরনো। রিপাবলিক টিভির (সম্পাদকের বিরুদ্ধে ৫ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা ঋণ নিয়ে শোধ না করা এবং আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ ছিল।  ২০১৮ সালে ইন্টিরিওর ডিজাইন তথা আর্কিটেক্ট অন্বয় নায়েক ও কুমুদ নায়েকের মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেফতার করা হল রিপাবলিক টিভির সম্পাদক অর্ণব গোস্বামীকে।  ৫৩ বছরের নায়েক ও তাঁর মা কুমুদ দুই বছর আগে আলিবাগে আত্মহত্যা করেন। নিজের সুইসাইড নোটে নায়েক বলেন যে একজন নিউজ চ্যানেলের সম্পাদক ও অন্য দুইজনের থেকে তিনি ৫.৪০ কোটি টাকা পান। সেই টাকা না পাওয়ায় কনকর্ড ডিজাইনসের ম্যানেজিং ডিরেক্টর নায়েক আত্মহত্যা করেন।                 আসলে ২০১৮ সালে মুম্বইয়ের এক ইন্টেরিয়র ডিজাইনার এবং তাঁর মা আত্মহত্যা করেন।                  মুম্বই পুলিশের দাবি, তাঁদের সুইসাইড নোটে বলা হয়েছিল, অর্ণব গোস্বামী ৫ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা শোধ না করায় আর্থিক অনটনে পড়তে হয়েছে, এবং সেকারণেই তাঁরা আত্মহত্যা করছেন। তারপরই অর্ণবের বিরুদ্ধে ঋণখেলাপি এবং আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ দায়ের করেন ওই ইন্টেরিয়র ডিজাইনারের মেয়ে আদন্যা নায়েক। গতবছর অবশ্য প্রাথমিক তদন্তের পর মামলাটি বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল পুলিশ। কিন্তু নতুন সরকার আসার পর তা আবার চালু হয়। এবার এই মামলায় সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দেন মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখ।  সেই মামলার তদন্তের স্বার্থে এদিন গ্রেফতার করা হয়েছে অর্ণব গোস্বামীকে। দেশমুখ জানিয়েছেন, আদন্যা অভিযোগ করেছেন যে আলিবাগ পুলিশ গোস্বামীর চ্যানেল থেকে বকেয়া পাওনা পরিশোধের অভিযোগটি তদন্ত করেনি, যা তিনি দাবি করেছিলেন 2018 সালে। দেশমুখ আরো জানিয়েছেন, কেউ আইনের উর্দ্ধে নয়। আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিচ্ছে মহারাষ্ট্র পুলিশ। মামলাটি বন্ধ ছিল, অন্বেয় নায়েকের পরিবার মামলাটি পুনরায় খোলার জন্য আদালতে আবেদন করেছিলেন।কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ তার টুইট বার্তায় কংগ্রেসকে আক্রমণ করেছেন, “কংগ্রেস এবং তার মিত্ররা আবারও গণতন্ত্রকে লজ্জা দিয়েছে।” এবং যোগ করেছেন যে গোস্বামীর গ্রেপ্তার হ’ল “ব্যক্তি স্বাধীনতা এবং গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভের উপর আক্রমণ”।বিজেপির সর্ব ভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা টুইটারে খুব প্রকাশ করে লিখেছেন, ‘মুক্ত গণমাধ্যম এবং মত প্রকাশের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী প্রত্যেক ব্যক্তি মহারাষ্ট্র সরকারের দ্বারা অর্ণব গোস্বামীর হয়রানির জন্য ক্রুদ্ধ। এটি সোনিয়া এবং রাহুল গান্ধী-পরিচালিত, বিরোধীদের যারা তাদের সাথে একমত নয় তাদের চুপ করে দেওয়ার আরও একটি উদাহরণ। লজ্জাজনক!’

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × one =

Back to top button