দেশ

গণতান্ত্রিক অধিকার খর্ব করা হচ্ছে : সৌগত রায়।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক: রবিবার  রাজ্যসভায়  কৃষি বিল বিরোধী প্রতিবাদের সময় “হাঙ্গামা”র কারণে সোমবার ডেরেক ও’ব্রায়েন, দোলা সেন সহ ৮ বিরোধী সাংসদকে সাসপেন্ড করেন রাজ্যসভার চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নাইডু। এই ৮ সাংসদকে   বাকি অধিবেশনের জন্য সাসপেন্ড করেন চেয়ারম্যান। আর এই সিদ্ধান্তকে “গণতন্ত্রের পক্ষে ক্ষতিকারক” বলে মত বর্ষীয়ান তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়।  এদিন তিনি বলেন,” দু:খজনক। গনতান্ত্রিক অধিকার খর্ব করা হল। রবিবার রাজ্যসভায় গণতান্ত্রিকভাবেই প্রতিবাদ করা হয়েছিল। এর থেকেই বোঝা যাচ্ছে দেশের গণতান্ত্রিক পরিস্থিতি কি।” শুধুমাত্র সাসপেন্ডই না, পাশাপাশি, রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ১২টি বিরোধী দল যে অনাস্থা প্রস্তাব এনেছিল, তাও খারিজ করে দেন বেঙ্কাইয়া নাইডু। এদিন এই ইস্যুতেই সরকারকে একহাত নেন তিনি। বলেন,” আসলে গোটা দেশে এক দলীয় শাসন কায়েম করতে চাইছে বিজেপি। দেশের কি হবে তা নিয়ে চিন্তিত।” সোমবার যাদের সাসপেন্ড করা হয়েছে তাঁদের মধ্যে রয়েছেন তৃণমূলের ডেরেক ও’ব্রায়েন ও দোলা সেন। কংগ্রেসের রাজীব সাতভ, সৈয়দ নাসির হুসেন, রিপুন ভোরা, আম আদমি পার্টির সঞ্জয় সিং, সিপিএমের কে কে রাগেশ এবং ই করিম। এই সাসপেন নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন এই তৃনূমুল সাংসদ। তার বক্তব্য,” একতরফা সাসপেন্ড করা হয়েছে। আত্মপক্ষ  সমর্থনের সুযোগ দেওয়া রীতি। যেভাবে সাসপেন্ড করা হল, তা সংসদীয় গণতান্ত্রিক রীতিনীতির বিরুদ্ধে। ” গতকাল রাজ্যসভায় ধ্বনিভোটে পাস হয় কৃষি বিল। এই নিয়ে তিনি বলেন, ” অগণতান্ত্রিকভাবে নিয়ম না মেনে ধ্বনিভোটে এই বিল পাশ করালো  সরকার।”  এরপরই সংসদে প্রবল বিরোধিতার মুখে পড়ে মোদি সরকার। রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যানের আসন ঘিরে বিক্ষোভ হয়। প্রতিবাদের সময় বিলের কপি ছিঁড়ে ফেলা হয়। টানাটানি হয় মাইক ধরেও।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button