দেশ

গুপ্তচরবৃত্তির দায়ে দিল্লী থেকে গ্রেফতার এক চিনা নাগরিক।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক; দিল্লী থেকে গ্রেফতার  এক চিনা নাগরিক।  গ্রেফতার করল দিল্লি পুলিশ। ধৃত এই চিনা নাগরিকের নাম কিং শি। সেই মহিলার সঙ্গে শের সিং এক নেপালি নাগরিককেও দিল্লি পুলিশ গ্রেফতার করেছে। দিল্লিতে স্থিত সাংবাদিক রাজীব শর্মার সঙ্গে মিলে ভারতের তথ্য চিনে পাচার করার দায়ে এদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ। এর আগে ১৪ সেপ্টেম্বর রাতে দিল্লির পীতামপুরা থেকে সাংবাদিক রাজীব শর্মাকে চিনের হয়ে গুপ্তচরবৃত্তির দায়ে গ্রেফতার করেছিল দিল্লি পুলিশ। অফিশিয়ালস সিক্রেটস অ্যাক্টের অধীনে রাজীবের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে দিল্লি পুলিশ। আজকে গ্রেফতার করা নেপালি এবং চিনা নাগরিকের বিরুদ্ধেও একই ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে বলে দিল্লি পুলিশের স্পেশাল সেলের ডেপুটি কমিশনার জানান। দিল্লি পুলিশের স্পেশাল সেলের ডেপুটি কমিশনার সঞ্জীব যাদব এই বিষয়ে বলেন, ‘রাজীব শর্মা নামক একজন ফ্রিলান্স সাংবাদিককে ১৪ সেপ্টেম্বর রাতে দিল্লি পুলিশের স্পেশাল সেল গ্রেফতার করে। চিনা সরকারকে ভারতের গোপন তথ্য পাচারের দায়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এছাড়া এক চিনা মহিলা এবং নেপালি নাগরিককে এদিন একই মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে।’ সঞ্জীব যাদব আরও বলেন, ‘শেল কোম্পানির মাধ্যমে রাজীব শর্মাকে টাকা দিচ্ছিল এই ধৃত চিনা এবং নেপালি নাগরিক। জানা গিয়েছে রাজীবকে চিনা ইন্টেলিজেন্স সংস্থা নিযুক্ত করেছিল ভারতের সংবেদনশীল সব তথ্য পাচার করার জন্যে। সাংবাদিক হওয়ায় এই সব তথ্য পাওয়া তার জন্যে খুব সহজ ছিল।’ পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, ‘গ্রেফতারির সময় পুলিশ রাজীবের বাড়ি থেকে প্রচুর মোবাইল ফোন, একাধিক ল্যাপটপ এবং সংবেদনশীল তথ্যযুক্ত নথি বাজেয়াপ্ত করেছে। তদন্ত চলছে। সব কিছু খতিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত বহু গোপনীয় তথ্য রাজীবের কাছে ছিল। আমাদের সন্দেহ, চিনকে সেসব তথ্য সে পাচার করত। তদন্ত যত এগোবে, তত বিষয়টি আরও স্পষ্ট হবে।’বর্তমানে রাজীব শর্মা ৬ দিনের হেফাজতে পুলিশের কাছে রয়েছে। পুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদ চালিয়ে যাচ্ছে। কী করে রাজীবের সঙ্গে চিনা কর্তৃপক্ষ যোগাযোগ করল। চিনকে এখনও পর্যন্ত কোন সব তথ্য সে সরবরাহ করেছে। এই সবকিছু জানার চেষ্টায় রয়েছে পুলিশ। ২২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রাজীবের পুলিশি হেফাজতের মেয়াদ রয়েছে। ফ্রিলান্স কাজ করার আগে রাজীব একটি পাঞ্জাব ভিত্তিক ইংরেজি সংবাদপত্র এবং একটি সংবাদ সংস্থাতে কাজ করেছে ।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button