দেশ

হাতের ট্যাটুতে ‘বিসমিল্লা’, মুসলিম যুবকের হাতই কেটে নেওয়ার অভিযোগ পানিপথে।

নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক : শখ করে ডান হাতের উল্কিতে লিখেছিল ” ঈশ্বরের” নাম।  কিন্তু কল্পনাতেও ভাবতে পারেনি, এই ” ঈশ্বরের” নামের  কারণে হাতটাই কাটা যাবে ।  অপরাধ একটাই ও জাতিতে মুসলিম। আর তা শুনেই ওর হাতটা কেটে দেয়। অবাক লাগছে! সেটাই স্বাভাবিক। পানিপথের এই “নৃশংসতায়” চমকে উঠছেন সবাই। সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন ভাইরাল ২৮ বছর বয়স ইখলাখ সালমানি। পেশায় নাপিত। লকডাউন। হাতে  কাজ নেই। কিন্তু পেট চালাতে হবে। তাই গত ২৩ অগাস্ট সাহারানপুর থেকে দুই বন্ধুর সঙ্গে পানিপথের দিকে রওনা হন ইখলাখ সালমানি। ৩৩ কিলোমিটার পথও পেরোন তারা। শেষ পর্যন্ত ক্লান্ত হয়ে খোজা শুরু করেন মাথা গোজার ঠাই। কিন্তু কৃষ্ণপুর অঞ্চলের মাথাগোজার ঠাঁই না পেয়ে আশ্রয় নেন কাছের একটি পার্কে। রাতের অন্ধকারে তার নাম পরিচয় জানতে চায় দুই যুবক। অভিযোগ, নাম বলতেই ব্যাপক মার খান তিনি। এখানেই শেষ নয়। অভিযোগ মারের চোটে দীর্ঘক্ষণ অচৈতন্য থাকার পর সামনের এক বাড়িতে রক্তাক্ত অবস্থাতেই জল চাইতে যান ইখলাখ। কিন্তু ভাগ্যের পরিহাস এমনই যে, সেই বাড়িরও দরজা খোলে ওই দুই যুবকই। শুরু হয় আরেক প্রস্থ অত্যাচারের পালা। প্রাণভিক্ষা চেয়েও লাভ হয়নি। আচমকাই তাদের চোখে পড়ে ইখলাখের হাতে একটি ট্যাটু। তাতে লেখা ৭৮৬। এই সংখ্যাটি ‘বিসমিল্লা’ শব্দেরই প্রতিরূপ। দেখেই ওই দুই যুবক সিদ্ধান্ত নেয় তার হাত কেটে দেওয়ার। সিদ্ধান্ত মত কাজ করে ইখলাখকে ফেলে আসা হয় কিষাণপুর রেল স্টেশনের ধারে। পরদিন জ্ঞান ফিরতে ইখলাখ পথচারীদের সাহায্যে বাড়িতে খবর দেন। অভিযোগ দায়ের করা হয় পানিপথের চাঁদনি বাগ স্টেশনে। ইখলাখের দাদার বক্তব্য, “আমার ভাইয়ের জীবনটা ধ্বংস হয়ে গেল। ওরা শুধু হাতই কাটেনি। ওর সমস্ত স্বপ্ন মাটিতে মিশিয়ে দিয়েছে। হয়তো কোনওদিনই আর কোনও কাজ করতে পারবে না ও। আমি এর বিচার চাই।” তিনি আরও জানাচ্ছেন, ওই ঘটনাস্থলে গিয়ে এলাকাবাসীর থেকে ঘটনার সত্যতা জেনেছেন তিনি। কিন্তু কেন এত বড় বর্বরতা! ইখ্লাখের দাদার বক্তব্য, “যারা এই কাজ করেছে তাদের বক্তব্য, তার ভাই নাকি তাদের একজনের ভাইপোকে নিগ্রহ করছিল। ওকে নাকি হাতেনাতে ধরেও ফেলে ওরা। ইখলাখ সত্যিই এ কাজ করেছে তার প্রমানে মেডিক্যাল রিপোর্ট দেখতে চাইলে ওই অভিযুক্ত বলেন, আামার কাছে এখন নেই, পরে দেখিয়ে দেবো। তারপর থেকে আর তার সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি।” এই ঘটনায় শিউরে উঠেছে গোটা দেশ। ইতিমধ্যে তদন্ত শুরু করা হয়েছে বলে জানিযেছে প্রশাসন।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button