দেশ

চাকুরি সুনিশ্চিত করার দাবীতে ত্রিপুরা শিক্ষা দপ্তরের অধিকর্তার নিকট গনডেপুটেশন

নিউস বেঙ্গল 365, আগরতলা: বিগত সিপিআইএম সরকারের আমলে 2007 সাল থেকে পর্যায়ক্রমে তিন ধাপে স্নাতক,স্নাতকোত্তর ও অস্নাতক স্তরে 10323 জন শিক্ষককে নিয়োগ করেছিল বিগত সিপিআইএম সরকার। কিন্তু এই 10323 জন শিক্ষক নিয়োগে বিগত সিপিআইএম সরকার কোন মেধা,সিনিয়রিটি দেখে চাকুরি দেয়নি। বিগত দিনে সিপিআইএম সরকারের শিক্ষামন্ত্রী ও আইনমন্ত্রী ছিলেন তপন চক্রবর্তী।কিন্তু কিছু বঞ্চিত বেকার সিপিআইএম সরকারের এই নিয়োগ নীতির বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করে। 2010 সালে হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চ এই মামলায় সিপিআইএম সরকারকে নির্দেশ দিয়েছিল যে,কমিটি গঠন করে নিয়োগ প্রক্রিয়া যথাযথ হয়েছে কিনা,তা খতিয়ে দেখার। কিন্তু বিগত সিপিআইএম সরকার সেই নির্দেশের বিরোধিতা করে ডিভিশন বেঞ্চে যায়। দীর্ঘ প্রায় 4 বছর ধরে শুনানির পর 2014 সালের 7ই মার্চ প্রধান বিচারপতি দীপক গুপ্তার নেতৃত্বাধীন ত্রিপুরা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ ও নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন তোলে। আদালত বিগত সিপিআইএম সরকারকে দু-মাস সময় দিয়ে সমস্ত নিয়োগ বাতিল বলে ঘোষণা করেন। একইসঙ্গে 10323 শিক্ষক নিয়োগ পদ্ধতি কি হবে তাও জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু বর্তমান বিজেপি ও আইপিএফটি জোট সরকার আসার পরে এই 10323 জন শিক্ষকদের চাকুরির জন্য চেষ্টা করছেন। কারন বর্তমান বিজেপি সরকার গরীবের সরকার। ত্রিপুরা রাজ্যের উন্নয়ন করাই বর্তমান বিজেপি সরকারের প্রধান কাজ। আজ আগরতলা অফিসলেনস্থিত ত্রিপুরা শিক্ষা দপ্তরের অধিকর্তার নিকট 10323 জন শিক্ষকের একটি প্রতিনিধি দল তাদের চাকুরি সুনিশ্চিত করার দাবী সহ আরো বিভিন্ন দাবীকে সামনে রেখে তারা ত্রিপুরা শিক্ষা দপ্তরের অধিকর্তার নিকট এক গনডেপুটেশনে মিলিত হন এবং বর্তমান ত্রিপুরা রাজ্য সরকারের কাছে তারা দাবী জানান তাদের চাকুরির জন্য বিকল্প একটা ব্যাবস্থা করার জন্য।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button