দেশ

পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দিল্লির লোদি রোডে গান স্যালুটের মাধ্যমে শেষ বিদায় ভারতীয় রাজনীতির চাণক্যকে।

নিউস বেঙ্গল 365 নিউদিল্লী: পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শেষ কৃত্য সম্পন্ন হল প্রণব মুখোপাধ্যাযের। অবসান হল একটি যুগের। নিউজ বেঙ্গল ৩৬৫ ডেস্ক।  পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দিল্লির লোধী রোডে গান স্যালুটের মাধ্যমে শেষ বিদায় জানানো হল ভারতীয় রাজনীতির চাণক্যকে। অবসান হল একটি  অধ্যায়ের। গত কাল দিল্লির সেনা হাসপাতালে শেষ নি: শ্বাস ত্যাগ করেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ও ভারতরত্ন প্রণব মুখোপাধ্যায়। আজ সকালে আর্মি হসপিটাল থেকে ১০, রাজাজী মার্গের বাড়িতে নিয়ে আসা হয় তার মরদেহ। তবে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার সময়ে কোভিড-১৯ পজেটিভ হন প্রণব মুখোপাধ্যায়। তাই করোনা বিধি মেনেই মঙ্গলবার শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়। হাসপাতাল থেকে এনে দেহ রাখা হয অন্য একটি ঘরে। সেখানে কাউকেই যেতে দেওয়া হয়নি। তার বদলে একটি বেদী করে তাতে রাখা হয় প্রণব মুখোপাধ্যায়ের একটি ছবি। একে একে তাতেই মালা দিয়ে শ্রদ্ধা জানান রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবীন্দ, উপ-রাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়াত, কংগ্রেসের লোকসভার দলনেতা অধীর চৌধুরী, কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধি,লোকসভার অধ্যক্ষ ওম বিড়লা,  সিপিআই নেতা ডি রাজা, দিল্লীর মূখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল,  উপ- মুখ্যমন্ত্রী মনীশ শিসোদিয়া, বিজেপি সাংসদ  জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, রূপা গঙ্গোপাধ্যায়-সহ বহু নেতা-মন্ত্রী ও সাধারণ মানুষ।   তবে প্রণব মুখোপাধ্যাযের মত একজন রাষ্ট্রনেতাকে শেষ দেখা দেখতে যে পরিমান ভীড় হওয়া উচিত কোভিডের কারণে সেই ভীড় এদিন চোখে পড়েনি। অনেক রাষ্ট্রনেতাই উপস্থিত থাকতে পারেন নি শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে। এদিন দুপুর ১ টা নাগাদ করোনাবিধি মেনে রাজারি মার্গের বাসভবন থেকে লোধি রোড শ্মশানঘাটে নিয়ে যাওয়া হয় প্রয়াত নেতার দেহ। কামানবাহী শকেটের বদলে কাচের গাড়িতে লোধী এস্টেটের শ্বশানে নিয়ে আসা হয তার মরদেহ। পিপিই পড়েই শ্বশানে আসেন পুত্র অভিজিত মুখোপাধ্যায় মেয়ে শর্মিষ্ঠা মুখোপাধ্যায় সহ নিকটাত্মীয়রা। গান স্যালুট ও “প্রণব দা অমর রহে” শ্লোগানের মধ্যেই পিপিই পরেই আচারবিধি সারলেন প্রণব-পুত্র অভিজিত মুখোপাধ্যায়। তবে আপাদ মস্তক বাঙালী দেশের ১৩ তম রাষ্ট্রপতির মরদেহ  পশ্চিমবঙ্গে না আনতে পারা নিযে  পুত্র অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘বাবার  উপস্থিতি ছিল আমাদের পরিবারের ভরসা। শুধুমাত্র করোনার জন্য নয়। প্রণব মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যু হয়েছে ব্রেনে অস্ত্রোপচারের জন্য। আমাদের তাঁকে পশ্চিমবঙ্গে নিয়ে যাওয়া ইচ্ছে ছিল। তবে বর্তমান পরিস্থিতির জন্য সেটা সম্ভব না।” অপরদিকে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুতে সাত দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করেছে  কেন্দ্রীয় সরকার। দেশে সর্বত্রই জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত থাকবে। একই সঙ্গে সরকারি উদ্যোগে কোনও বিনোদনমূলক অনুষ্ঠান হবে না। আগামী ৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে রাষ্ট্রীয় শোক।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button